বিশ্ব বাণিজ্য

পোল্যান্ডে বিনিয়োগের পরিকল্পনা হুয়াওয়ের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: পাঁচ বছরে পোল্যান্ডে ৭৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে চীনের টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়ে। দেশটির ফাইভজি পরিকল্পনায় হুয়াওয়েকে রাখা হবে কি না তার ওপর ভিত্তি করে বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়ানো বা কমানোও হতে পারে। খবর: রয়টার্স।
সাম্প্রতিক সময়ে হুয়াওয়ের প্রযুক্তি নিয়ে নিরাপত্তার প্রশ্ন তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র। সহযোগী দেশগুলোকে হুয়াওয়ের প্রযুক্তি ব্যবহার না করার পরামর্শও দিয়েছে তারা। অন্যদিকে হুয়াওয়ের দাবি তাদের প্রযুক্তি গ্রাহকের নিরাপত্তায় কোনো প্রভাব ফেলে না।
চলতি বছর জানুয়ারিতে পোল্যান্ড কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে বলা হয়, ফাইভজি নেটওয়ার্ক থেকে হুয়াওয়েকে বাদ দিতে তারা প্রস্তুত। চীনা এক হুয়াওয়ে কর্মী ও পোল্যান্ডের সাবেক এক নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে গ্রেফতারের পর এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় পোল্যান্ড সরকার।
চীনা প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘পোল্যান্ডে উন্নয়ন ও বিনিয়োগ করতে চায় হুয়াওয়ে, তবে এটি ব্যবসায়িক দিক থেকে কার্যকর হতে হবে।’ এর আগে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল তিন বছরে ২০০ কোটি জুওটি (পোল্যান্ডের মুদ্রা) বিনিয়োগ করা হবে। এবার বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়িয়ে ৩০০ কোটি জুওটি বা ৭৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার করার পরিকল্পনা করেছে হুয়াওয়ে।
উল্লেখ্য, গত ১৫ মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন আনুষ্ঠানিকভাবে হুয়াওয়েকে যুক্তরাষ্ট্রে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করে। এতে সরকারি অনুমোদন ছাড়া মার্কিন সংস্থা থেকে প্রযুক্তিসেবা নেওয়ার পথ বন্ধ করা হয় হুয়াওয়ের জন্য। অবশ্য হুয়াওয়ের বিধিনিষেধ তিন মাসের জন্য শিথিল করে যুক্তরাষ্ট্র।
নিষেধাজ্ঞার পর হুয়াওয়ের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে আর কোনো আপডেট ভার্সন দেবে না বলে জানায় গুগল। হুয়াওয়ে তখন জানায়, নিজেদের অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে আগেই তারা কাজ শুরু করেছিল। সেই অপারেটিং সিস্টেমের নাম ‘হংমেং’। অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি এড়াতেই এ কাজ করেছে হুয়াওয়ে।
হুয়াওয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞার প্রভাব এরই মধ্যে বিশ্বের প্রযুক্তি খাতে পড়তে শুরু করেছে। বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের পীড়নের জবাবে চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো আরও শক্তিশালী হবে।

সর্বশেষ..