বিশ্ব বাণিজ্য

প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানে ফ্রান্সের শুল্কারোপ ইস্যু তদন্তের নির্দেশ ট্রাম্পের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ওপর ফ্রান্সের শুল্কারোপের পরিকল্পনার বিষয়টি তদন্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মাধ্যমে নতুন করে শুল্কারোপ কিংবা বাণিজ্য কঠোরতা আরোপ করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইতোমধ্যে তদন্ত শুরুর আদেশ দিয়েছেন। খবর: বিবিসি, রয়টার্স।
যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইথিজার বলেছেন, ডিজিটাল সেবায় ফ্রান্স শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র খুবই উদ্বিগ্ন। ফ্রান্সে সিনেটে এ ধরনের সিদ্ধান্ত পাস হতে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে অন্যায্যভাবে লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।
ফ্রেঞ্চ পার্লামেন্টে এ সিদ্ধান্ত অনুমোদন পেলে গুগল ও ফেসবুকের মতো প্রতিষ্ঠানের আয় করা রাজস্বের ওপর তিন শতাংশ শুল্কারোপ করা হতে পারে। ফ্রান্স মনে করছে, এ প্রতিষ্ঠানগুলো বৈশ্বিক পর্যায়ে শুল্ক এড়িয়ে যাচ্ছে। নতুন তদন্তের মাধ্যমে ওই শুল্কারোপ করা হলে তা অন্যায্য বাণিজ্য করা হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।
গত মার্চে ফ্রান্সের অর্থমন্ত্রী ব্রুনো লে মেয়ার বলেন, ফ্রান্সে বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর আয়ের ওপর তিন শতাংশ হারে শুল্কারোপ করা হতে পারে। এতে বছরে ৫০ কোটি ইউরো আয় করার সুযোগ তৈরি হবে।
এ ব্যাপারে লাইথিজার বলেছেন, সেকশন-৩০১ এর আওতায় ফ্রান্সের সিদ্ধান্তের প্রভাব কি হতে পারে তা তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এছাড়া এটা যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যের জন্য বৈষম্যমূলক, অযৌক্তিক এবং বোঝা কিং সীমাবদ্ধ করার প্রচেষ্টা কিনা তাও খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।
লে মেয়ার বলেছেন, এ সিদ্ধান্তের ফলে অন্তত ৩০টি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ওপর শুল্কারোপ করা হতে পারে। যার মধ্যে অধিকাংশই যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান। এছাড়া জার্মান, চীনা, স্প্যানিশ ও ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানও রয়েছে। এমনকি ফ্রান্সেরও একটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এ তালিকায় রয়েছে।
এ শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোকে বছরে প্রায় ৭৫ কোটি ইউরো অর্থ গুনতে হবে। তাদের ডিজিটাল ব্যবসা বিশেষত অনলাইন বিজ্ঞাপন যারা প্রচার করে তাদেরই এ অর্থ প্রদান করতে হবে। এর মধ্যে গুগল, অ্যাপল, ফেসবুক এবং অ্যামাজনের ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে।
প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানবিষয়ক লবি গ্রুপ আইটিআই এ তদন্তের প্রক্রিয়াকে স্বাগত জানালেও শুল্কারোপের বিষয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছে।

সর্বশেষ..