স্পোর্টস

পয়েন্ট হারালেও সেমির আশায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক: পরপর দুই ম্যাচে হেরে এমনিতেই সেমিফাইনালে জায়গা পাওয়াটা বেশ চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ। তাই গত পরশু শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে আবারও আশা বাঁচিয়ে রাখার চিন্তা করেছিল টিম টাইগার্স। কিন্তু আপাতত তেমনটি হতে দেয়নি ব্রিস্টলের বৃষ্টি। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত যা ভোগায় মাশরাফি বিন মুর্তজাদের। শেষ পর্যন্ত বল না গড়ানোয় এক পয়েন্ট নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে স্টিভ রোডস শিষ্যদের। তাতে লাল-সবুজদের দ্বাদশ বিশ্বকাপের সেমির স্বপ্ন বেশ মিইয়ে গেছে বলা যায়। কিন্তু এখনই সে ভাবনাতে যেতেই চাইছে না টাইগাররা।
টানা তিন ম্যাচ জিতে দ্বাদশ বিশ্বকাপে আপাতত পয়েন্ট তালিকায় সবার ওপরে নিউজিল্যান্ড। স্বাভাবিকভাবেই কিউইরা এ টুর্নামেন্টের সেমিতে জায়গা পেতেই পারে। স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও ভারতকে এবারের আসরের ফেভারিট মানছেন সবাই। দল দুটি খেলছেও দারুণ। তাই সেমিফাইনালের লাইনআপে বাকি থাকছে একটি স্পট। সেটির দাবিদার অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া এবং বৃষ্টিতে ম্যাচ পণ্ড হওয়ার কারণে দুই পয়েন্ট পেয়ে যাওয়া শ্রীলঙ্কা। পয়েন্ট তালিকায় চার ও পাঁচ নম্বরে যে আছে এ দুটি দলই।
চলতি বিশ্বকাপে পয়েন্ট টেবিলে আপাতত বাংলাদেশ রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিচে। যাদের সঙ্গেই পরের ম্যাচে মুখোমুখি হবে টাইগাররা। খেলা হবে টন্টনে। তার আগে ক্যারিবীয়দের বিগ শট ভয়ের শঙ্কা তৈরি করছে টাইগারদের শিবিরে। এ ব্যাপারে গত পরশু সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ‘হুম, ওদের দলে অনেক বিগ হিটার আছে। আমরাও সেভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। লক্ষ্য থাকবে আমাদের পথচলা যেন ঠিকঠাক হয়।’
তবে বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস ক্যারিবীয়দের মারকাটারি ব্যাটিং নিয়ে ভয় না থাকার কথাই বলেছেন, ‘আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে ওদের খেলেছি।’
এখন পর্যন্ত চার ম্যাচের একটি জয় দুটি হার ও একটিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি। তার মানে সেমিফাইনালে জায়গা পাওয়ার আশা টিকিয়ে রাখতে হলে টাইগারদের অন্তত আরও জিততে হবে তিনটি ম্যাচ। এ হিসাব করলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাতে হবে রোডস শিষ্যদের। এরপর অজিদের বিপক্ষে না পারলেও আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ের ছক কষছে টিম টাইগার্স। এ সবই অবশ্য সম্ভাবনার কথা। তবে ক্রিকেট তো আর সম্ভাবনার পথ ধরে নিয়ম করে হাঁটে না। এর মোড়ে মোড়ে অনিশ্চয়তা। অপেক্ষাকৃত ছোট দলগুলোর জন্য যা আরও অনিশ্চিত।
বাংলাদেশের হাতে রয়েছে আর মাত্র পাঁচটি ম্যাচ। এর মধ্যে অন্তত চারটি জয় তাই মাশরাফি বিন মুর্তজাদের সেমিফাইনালে ওঠার স্বপ্নপূরণের চেয়েও কঠিনতর মনে হচ্ছে। অধিনায়ক নিজে বাস্তবতার কথা বলছেন বারবার, ‘আমাদের মতো দলের পক্ষে প্রতি ম্যাচে ভালো খেলা কঠিন, এটা সবাইকে বুঝতে হবে। বলছি না যে আমাদের পক্ষে অসম্ভব। ক্রিকেটে তো কত কিছুই সম্ভব। তবে এত বড় আসরে বড় বড় দলের বিপক্ষে প্রতিদিন জেতা খুব কঠিন।’
বাস্তবতার কথা চিন্তা করলে গত পরশু শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ বাতিল হওয়ায় বেশ হতাশ হয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচ হলে দুই পয়েন্ট পেতেই পারত বাংলাদেশ, অন্তত তীব্র আশাবাদ দেখা গেছে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে থেকেই। ম্যাচ হলে যে ফল উল্টোও হতে পারত, সে রকম কোনো শঙ্কা দেখা যায়নি বাংলাদেশ দলে।

 

সর্বশেষ..