টেলকো টেক

ফাইভজি ক্লাউড গেম হুয়াওয়ে ও নেটইজের যৌথ ল্যাব

ফাইভজি ক্লাউড গেমের উন্নয়নে এক সঙ্গে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছে হুয়াওয়ে ও নেটইজ। হুয়াওয়ের এক্স ল্যাব ও নেটইজের থান্ডার ফায়ার যৌথভাবে ফাইভজি ক্লাউড গেম জয়েন্ট ইনোভেশন ল্যাব প্রতিষ্ঠা করবে। এজন্য সম্প্রতি চীনের সাংহাইয়ে সমাপ্ত হওয়া মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস, সাংহাই-২০১৯ উদ্বোধনের আগে প্রতিষ্ঠান দুটি একটি সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষর করে। চুক্তির আওতায় প্রতিষ্ঠান দুটি গেম ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন সুযোগ সৃষ্টি ও ক্লাউড গেমিং ইন্ডাস্ট্রির বিভিন্ন গেমের মডেল মূল্যায়ন করবে।
বিশ্বে গেমের বাজার এটি একটি ঊর্ধ্বমুখী খাত। এ খাতে নতুন প্রযুক্তি যুক্ত হওয়ায় ব্যবসার ধরন প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে বলা যায়, প্রথম ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্কের প্রচলনের কথা। তখন কনসল গেমের পরিবর্তে অনলাইন গেমের প্রচলন শুরু হয়। কারণ, অনলাইন গেমে একজন অন্যজনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারত। এরপর এ খাতে ব্যবসার ধরন পরিবর্তিত হয়ে গেল। যেমন, সিডি রম কেনার পরিবর্তে গ্রাহক গেম কার্ড কেনা শুরু করল। আরও পরে ফোরজি চালুর পর মোবাইল গেম গ্রাহকের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠল এবং আবারও ব্যবসার ধরনে পরিবর্তন আসে। এখন ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালুর জন্য প্রস্তুত। একই সঙ্গে ক্লাউড গেমও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। কনসল ও মোবাইল গেমের সমন্বয়ে মূলত ক্লাউড গেম তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া ক্লাউড গেমে মান ও গ্রাহকের চাহিদার বিষয়টি বিবেচনা করা হয়েছে। ফলে আবারও ব্যবসার ধরনে পরিবর্তন আসবে। এবার গ্রাহক হার্ডওয়্যার কেনার পরিবর্তে ভালো মানের কনটেন্ট ও অভিজ্ঞতার জন্য অর্থ ব্যয় করবেন।
নেটইজের সঙ্গে যৌথভাবে ফাইভজি ক্লাউড গেম ল্যাব প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ হুয়াওয়ের গ্রাহকবান্ধব একটি উদ্যোগ, যা ফাইভজিভিত্তিক ক্লাউড গেম ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে সহায়তা করবে। চুক্তির আওতায় উভয় পক্ষ যৌথভাবে বিশ্ববাজারে গেমের চাহিদা ও অভিজ্ঞতা বিষয়ে গবেষণা পরিচালনা করবে। নতুন ফাইভজিনির্ভর গেমের মডেল উদ্ভাবন করবে।
হুয়াওয়ের ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক বিভাগের চিফ মার্কেটিং অফিসার পেং হংহুয়া বলেন, মোবাইল গেম মূলত ফোরজিভিত্তিক ও ক্লাউড গেইম ফাইভজিভিত্তিক। ফাইভজি নেটওয়ার্কে আলট্রা-হাই ব্যান্ডউইথ্ড, আলট্রা-লো ল্যাটেনসি ও কিউওএস গ্যারান্টি পাওয়া যাবে। ফাইভজি ও ক্লাউড প্রযুক্তির সহায়তায় মোবাইল ফোন, প্যাড, ট্যাবলেট, কম্পিউটার, এমনকি সেট-টপ বক্সও এখন গেম খেলার ডিভাইস হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। ফলে ক্লাউড ইন্ডাস্ট্রির উন্নয়নে নতুন উপাদান যোগ হবে, ব্যবসার নতুন সুযোগ সৃষ্টি হবে। নেটইজের সঙ্গে কাজ করে ক্লাউড গেম ইন্ডাস্ট্রিতে হুয়াওয়ে অনন্য অবদান রাখতে সক্ষম হবে।
নেটইজের থান্ডার ফায়ারের প্রেসিডেন্ট হুজিপেং বলেন, ডিভাইসের সীমাবদ্ধতা ভেঙে কনসল গেমের পরিবর্তে ক্লাউড গেম সরবরাহকারীদের জন্য ‘গোল্ডেন উইন্ডো’র হাতছানি দিচ্ছে। ক্লাউড গেমে উচ্চ মানসম্পন্ন ছবি পাওয়া যাবে। হুয়াওয়ের সঙ্গে এ ধরনের যৌথ ল্যাব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ফাইভজির যুগে গেম ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যাপক সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। এ উদ্যোগের মাধ্যমে ক্লাউড গেমের মান নির্ধারণ করা সম্ভব হবে।

সর্বশেষ..



/* ]]> */