শোবিজ

ফিরোজা বেগম স্মৃতিপদক পেলেন ফরিদা পারভীন

শোবিজ ডেস্ক: বিশ্বে মানুষ তার কৃতকর্মের জন্য অমর হয়ে থাকে। যুগযুগান্তর বেঁচে থাকে মানুষের মাঝে। আর অসামান্য অবদানের কারণে হয়ে ওঠে কালোত্তীর্ণ। ফিরোজা বেগম তেমনই একজন কালজয়ী সংগীতশিল্পীর নাম। যিনি নজরুলসংগীত সাধনায় জীবন উৎসর্গ করেছেন। নজরুলসংগীতে অসামান্য অবদান তাকে করেছে মহান। গভীর উপলব্ধি বোধ নিয়ে তিনি আজীবন গানের চর্চা করে গেছেন। কঠোর অনুশীলন আর লক্ষ্যে অবিচল থেকে নজরুলসংগীতসহ আরও বিভিন্ন গানে হয়ে উঠেছেন কিংবদন্তি। উপমহাদেশের প্রখ্যাত এ কণ্ঠশিল্পীর শিল্পীসত্তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রবর্তন করে ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কার’। প্রতিবছর একজন দেশবরেণ্য শিল্পীকে এ স্বর্ণপদক ও পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়। একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে এ পদক দেওয়া হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গঠিত ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড এটির আয়োজন করে। দেশের কীর্তিমান শিল্পীদের সম্মান জানাতে ও দেশের শুদ্ধ সংগীতচর্চার প্রতি নতুন প্রজš§কে অনুপ্রেরণা দিতেই এটি করা হয়েছে। এ বছর ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কারে মনোনীত হয়েছেন বরেণ্য লালনগীতি শিল্পী ফরিদা পারভীন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের বিএ সম্মান পরীক্ষায় সর্বোচ্চ সিজিপিএপ্রাপ্ত ছাত্রী খোন্দকার আনিকা ইসলাম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ফরিদা পারভীনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। আর খোন্দকার আনিকা ইসলামের পুরস্কারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে দেওয়া হবে। ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ডের চেয়ারম্যান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দিন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। শিল্পী ফরিদা পারভীন বলেন, আমাকে এ পুরস্কারে মনোনীত করায় জুরি বোর্ডকে ধন্যবাদ; সে সঙ্গে এসিআই ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ মর্যাদাপূর্ণ এ পুরস্কার প্রণয়নে পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন। আরও উপস্থিত ছিলেন ফিরোজা বেগমের সহোদর ও এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা, ছাত্র, শিল্প-সাহিত্য অঙ্গনের বিশিষ্টজন, কবি, লেখক, বিভিন্ন সংগীতশিল্পী ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব।

সর্বশেষ..



/* ]]> */