দিনের খবর শেষ পাতা

ফেরিতে ট্রাক কাভার্ডভ্যান পারাপার বন্ধ ছয় দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ঈদুল ফিতরের আগে ও পরে তিন দিন করে মোট ছয় দিন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ছাড়া সাধারণ ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান ফেরিতে পারাপার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘœ করতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
রাজধানীল মতিঝিলে বিআইডব্লিউটিএ ভবনে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে লঞ্চ, ফেরি ও অন্যান্য জলযান সুষ্ঠুভাবে চলাচল এবং যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ-সংক্রান্ত সভায় গতকাল এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
সভায় আরও কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেমন, লঞ্চের স্বাভাবিক চলাচল নিশ্চিতে নৌপথে সব মাছ ধরার জাল পাতা বন্ধ রাখতে হবে। রাতে সব ধরনের পণ্যবাহী জাহাজ, বালুবাহী বাল্কহেড চলাচল বন্ধ থাকবে। ১ থেকে ৮ জুন পর্যন্ত দিনের বেলায়ও সব বালুবাহী বাল্কহেড চলাচল বন্ধ রাখতে হবে।
সভার প্রধান অতিথি নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, নৌপরিবহন ব্যবস্থা আগের চেয়ে বেশি নিরাপদ। গত ১০ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার নৌপরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নে সামগ্রিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সরকার ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খননের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। নৌপথ খননের জন্য ৪০০ থেকে ৫০০ ড্রেজার প্রয়োজন।
তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু সরকারের সময়ে বিআইডব্লিউটিএ’র ড্রেজার ছিল মাত্র সাতটি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর কোনো সরকারই ড্রেজার সংগ্রহের ক্ষেত্রে আন্তরিক ছিল না। গত ১০ বছরে সরকারি বেসরকারি মিলিয়ে প্রায় ২০০ ড্রেজার যুক্ত হয়েছে। আগামী এক বছরে আরও ১৫০টির মতো ড্রেজার যুক্ত হবে।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. শাহাদাৎ হোসেন, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমোডর এম মাহবুব উল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমোডর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, নৌপুলিশের ডিআইজি শেখ মারুফ হাসান, বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, লঞ্চ মালিক সাইদুর রহমান রিন্টু, শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়া, বদিউজ্জামান বাদল, নৌযান শ্রমিক নেতা মো. শাহ আলম ও জাহাঙ্গীর আলম।

সর্বশেষ..