বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে সিঙ্গাপুরের বিনিয়োগকারীরা লাভবান হবেন

সিঙ্গাপুরে বিজনেস সেমিনারে বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ বিনিয়োগের জন্য খুবই লাভজনক স্থান। সরকারের নিয়োগবান্ধব নীতি ও পরিবেশ বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করছে। বিভিন্ন দেশের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে শুরু করেছে। বাংলাদেশে এখন পর্যাপ্ত দক্ষ জনশক্তি রয়েছে। এখানে কম খরচে বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদন করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

গতকাল সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ বিজনেস চেম্বার, সিঙ্গাপুর আয়োজিত ‘সেমিনার টু প্রমোট ট্রেড অ্যান্ড কমার্স বিটুইন বাংলাদেশ অ্যান্ড সিঙ্গাপুর’ শীর্ষক বিজনেস সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব

কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত একশটি স্পেশাল ইকোনমিক জোনে সিঙ্গাপুরের বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করতে এগিয়ে এলে বাংলাদেশ সরকার প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবে। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষায় সরকার আইন প্রণয়ন করে সুরক্ষা দিয়েছে। এখন বাংলাদেশে যে কোনো বিনিয়োগকারী শতভাগ বিনিয়োগ করতে পারে, প্রয়োজনে লাভসহ সমুদয় অর্থ ফিরিয়ে নিতে পারে বিনিয়োগকারী।

মন্ত্রী বলেন, সরকার রফতানি বাণিজ্য প্রসারে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষর করছে। প্রয়োজন হলে বাংলাদেশ সিঙ্গাপুরের সঙ্গে এফটিএ করার চিন্তা করবে। বাংলাদেশে বিপুল সংখ্যক টুরিস্ট সিঙ্গাপুরে আসে, বাংলাদেশও সিঙ্গাপুরের জন্য ভালো ট্যুরিস্ট স্পট হতে পারে। এ জন্য বাংলাদেশ সরকার বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করবে, যাতে সিঙ্গাপুরের ট্যুরিস্ট বাংলাদেশে আসতে আগ্রহী হয়। এজন্য উভয় দেশের ব্যবসায়ীদের দায়িত্বশীল ভ‚মিকা পালন করতে হবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি বিগত যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক শক্তিশালী। বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় এক হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার। নি¤œআয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার সকল শর্ত বাংলাদেশ ইতোমধ্যে পূরণ করেছে। কিছুদিনের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হবে।

বাংলাদেশ বিজনেস চেম্বার, সিঙ্গাপুরের প্রেসিডেন্ট মো. শহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. মোস্তাফিজুর রহমান। সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারী এবং সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।