বাংলাদেশে মিশ্র সার উৎপাদন কারখানা স্থাপনের প্রস্তাব

শিল্পমন্ত্রীর সঙ্গে জাপানি উদ্যোক্তার বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে একটি নাইট্রোজেন, ফসফরাস ও পটাশিয়াম (এনপিকে) মিশ্র সার উৎপাদনের কারখানা স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছে জাপানের উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান মারুবেনি করপোরেশনের কর্মকর্তারা। রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকলের আধুনিকায়ন ও পণ্য বৈচিত্র্যকরণেও এ প্রতিষ্ঠান সহায়তা করতে আগ্রহী।

বাংলাদেশে সফররত মারুবেনি করপোরেশনের দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়া অঞ্চলের প্রধান নির্বাহী নোয়াকি ইজুমি শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সঙ্গে বৈঠককালে বাংলাদেশে এসব খাতে বিনিয়োগের আগ্রহ জানান। গতকাল রোববার শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে শিল্পসচিব মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ, মারুবেনি করপোরেশনের ঢাকা অফিসের মহাব্যবস্থাপক আকিহিসা তোমিওকা, প্লান্ট প্রজেক্ট বিভাগের মহাব্যবস্থাপক নাগাহিতু মায়োশি, উপমহাব্যবস্থাপক হিকারি কাওয়াই ও ব্যবস্থাপক মোটোয়াকি ইউশিদা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বাংলাদেশের শিল্প খাতের উন্নয়নে মারুবেনি করপোরেশনের কারিগরি সহায়তার বিষয়ে আলোচনা হয়। এ সময় সার উৎপাদন শিল্পে আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কোটেড ইউরিয়া সার উৎপাদন, কৃষিপণ্য বৈচিত্র্যকরণ, চিনিশিল্পের আধুনিকায়নসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয় স্থান পায়।

মারুবেনির আঞ্চলিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে মারুবেনি বাংলাদেশকে সম্ভাব্য সব ধরনের সহায়তা দিতে আগ্রহী। বাংলাদেশে এনপিকে মিশ্র সার উৎপাদনের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে সমীক্ষা চালিয়েছে। এ সার উৎপাদনে জ্বালানিসাশ্রয়ী সার কারখানা স্থাপনে মারুবেনির অভিজ্ঞতা কাজে লাগানো যেতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

শিল্পমন্ত্রী মারুবেনি করপোরেশনের এ প্রস্তাবকে স্বাগত জানান।

তিনি বলেন, সমীক্ষা প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে মারুবেনি কোনো সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিলে শিল্প মন্ত্রণালয় তা যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে যাচাই-বাছাই করে দেখবে। এ প্রস্তাব বাংলাদেশের জাতীয় স্বার্থের অনুকূলে হলে তা দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। তিনি বাংলাদেশের চিনিশিল্পের আধুনিকায়ন এবং পণ্য বৈচিত্র্যকরণে বাস্তবধর্মী প্রকল্প নিয়ে এগিয়ে আসতে মারুবেনির আঞ্চলিক প্রধান নির্বাহীকে পরামর্শ দেন।