বাজারের গতি হতাশ করল বিনিয়োগকারীদের

রুবাইয়াত রিক্তা: বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গতকাল প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে গতকাল উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনের সময়সীমা ৩০ মিনিট বাড়ানো হয়েছিল। যার কারণে বিনিয়োগকারীদের মধ্যেও উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যায়। তাদের প্রত্যাশা ছিল গতকাল পুঁজিবাজার ভালো অবস্থানে থাকবে। ফলে তারা কিছু মুনাফা করতে পারবে। কিন্তু বিনিয়োগকারীদের সে প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। বরং অধিকাংশ শেয়ারের দর কমে সূচক নেতিবাচক অবস্থানে চলে গেছে। লেনদেনও আশাব্যঞ্জক ছিল না।
গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বেশিরভাগ খাতেই দরপতনের আধিক্য ছিল। তুলনামূলক ইতিবাচক ছিল ওষুধ ও রসায়ন, প্রকৌশল এবং বিবিধ খাত। আর বড় ধরনের পতন নেমে আসে টেলিযোগাযোগ, ব্যাংক ও আর্থিক খাতে। গতকাল সবচেয়ে বেশি ১৭৮ কোটি টাকা বা ২১ শতাংশ লেনদেন হয় প্রকৌশল খাতে। এ খাতে ৫০ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। ওইম্যাক্স ইন্ডাস্ট্রিজ ও নাহি অ্যালুমিনিয়ামের দর ৯ শতাংশের বেশি বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। বিডি ল্যাম্পসের সাড়ে সাত শতাংশ দর বেড়েছে। এছাড়া বিবিএস কেব্লসের ৪৭ কোটি টাকার, নাহি অ্যালুমিনিয়ামের ২১ কোটি, ইফাদ অটোসের ১৬ কোটি ও ওইম্যাক্সের সাড়ে ১৩ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ১৭ শতাংশ লেনদেন হয় জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে। এ খাতে ৪৭ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। খুলনা পাওয়ারের ৮১ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ১০ শতাংশ। কোম্পানিটি গত কিছুদিন ধরে একটানা বাড়ছে। ইউনাইটেড পাওয়ারের সাড়ে ২৬ কোটি টাকা লেনদেন হয়। ওষুধ ও রসায়ন খাতে লেনদেন হয় ১৫ শতাংশ। এ খাতে ৫৯ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। এ খাতের অ্যাকটিভ ফাইনের ৭৮ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর আট শতাংশের বেশি বেড়েছে। বস্ত্র খাতে ১৩ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। এ খাতে ২৫ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। শাশা ডেনিমসের ২১ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে চার টাকা ২০ পয়সা। বিবিধ খাতে ৫৮ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। টেলিযোগাযোগ ও ট্যানারি খাতে শতভাগ, ব্যাংক খাতে ৯০ শতাংশ এবং আর্থিক খাতে ৭৮ শতাংশ, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ৭৫ শতাংশ, সিরামিক খাতে ৮০ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল। তবে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ইনটেক লিমিটেড ১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। অন্যদিকে পাট খাতে শতভাগ এবং কাগজ ও মুদ্রণ খাতে ৬৬ শতাংশ শেয়ারদর ইতিবাচক ছিল।