প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

বিক্রির চাপে প্রতিটি খাতেই পতন

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে গতি ফেরাতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা নানামুখী উদ্যোগ নিলেও দরপতন থামছে না কিছুতেই। দরপতনের পাশাপাশি গতকাল লেনদেন নেমে এসেছে আড়াইশ’ কোটি টাকায়; যা গত ১৪ মাসের মধ্যে সর্বনিন্ম। রমজান মাসে স্বাভাবিকভাবেই বিনিয়োগকারীদের উপস্থিতি কম থাকে বাজারে। এবার তা আরও কমেছে। লেনদেনের গতি দেখে বোঝা যাচ্ছে বিনিয়োগকারীরা বাজারবিমুখ হয়ে পড়েছেন। গতকাল সবগুলো খাতেই ছিল দরপতনের আধিক্য। তবে তুলনামূলক ভালো ছিল খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাত। এ খাতে দর কমার চেয়ে বৃদ্ধির হার বেশি ছিল।
গতকাল মোট লেনদেনের ১৯ শতাংশ বা ৪৪ কোটি টাকা লেনদেন হয় ব্যাংক খাতে। এ খাতে ৩৭ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। যমুনা ব্যাংকের সাড়ে আট কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়, দর অপরিবর্তিত ছিল। ব্র্যাক ব্যাংকের সাড়ে আট কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে এক টাকা ৪০ পয়সা। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৩ শতাংশ। এ খাতে ৩২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ১০ শতাংশ। এসক্যোয়ার নিটের সাড়ে চার কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৭০ পয়সা। রহিম টেক্সটাইল সাড়ে তিন শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। খাদ্য খাতে ৫৩ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এ খাতের বঙ্গজ সাড়ে চার শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধিতে তৃতীয় অবস্থানে ছিল। গতকাল মিউচুয়াল ফান্ডের দর তুলনামূলক বেশি বেড়েছে। দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে আইসিবি এএমসিএল, সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এনসিসি ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ান। বিমা খাতের পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে একমাত্র জেনেক্স ইনফোসিসের দর এক টাকা ৯০ পয়সা বেড়েছে। কোম্পানিটি দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে অবস্থান করে। চামড়া শিল্প খাতের একমাত্র লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের দর আট টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে দরবৃদ্ধিতে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল এবং লেনদেন হয় সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা। ফরচুন সুজের সোয়া ১৫ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ৫০ পয়সা দরপতন হয়। এছাড়া বিএসসির সাত কোটি টাকা, মুন্নু সিরামিকের সোয়া ছয় কোটি টাকা, পাওয়ার গ্রিডের প্রায় ছয় কোটি, গ্রামীণফোনের সাড়ে পাঁচ কোটি ও স্কয়ার ফার্মার প্রায় পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হলেও দরপতনে ছিল কোম্পানিগুলো।

সর্বশেষ..