বিজনেস আইডিয়া: ছবি বাঁধাই করে আয়

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে, কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় এমন বিজনেস। এ ধরনের উদ্যোক্তার পাশে দাঁড়াতে শেয়ার বিজের সাপ্তাহিক আয়োজন

ছবি বাঁধাই করে আয়

একটি ছবি হাজারো শব্দের সমান। সে ছবিই আবার স্মৃতি ধরে রাখে। ছবির মধ্য দিয়ে আমরা ব্যক্তিগত কিংবা পারিবারিক ইতিহাস জানতে পারি। তাছাড়া ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতেও এর ভূমিকা রয়েছে। কাজেই ছবির গুরুত্ব অসীম। এ গুরুত্ব বিবেচনায় ছবি সংরক্ষণ করা প্রয়োজন। আর সংরক্ষণের জন্য দরকার বাঁধাই করা।

ছবি বাঁধাইয়ের প্রতি মানুষের আগ্রহ রয়েছে। চাহিদার কথা বিবেচনা করে আপনি কাজটি শুরু করতে পারেন। ছবি বাঁধাইয়ের জন্য বড় কিংবা দামি যন্ত্রপাতির প্রয়োজন হয় না। তাই অল্প পুঁজিতে এ ব্যবসা শুরু করতে পারে যে কেউ। তবে কিছু ছোটখাট যন্ত্রপাতি কিনতে হবে।

একটি ছবি বাঁধাইয়ের জন্য নারকেল বা গজারি কাঠের ফ্রেম, কাচ, আঠা, হার্ডবোর্ড, ছোট টেবিল, কাঁচি, হাতুড়ি, প্লাস্টিক, রেক্সিন, কাপড়, স্কেল, শক্ত কাগজ প্রভৃতি দরকার। এসব উপকরণ কিনতে সাত থেকে আট হাজার টাকা লাগবে। কাঠের পরিবর্তে অনেকে লোহা বা পিতলের ফ্রেম পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে আরও বেশি পুঁজির প্রয়োজন হতে পারে। থাকার জায়গাতেই শুরু করতে পারেন ব্যবসাটি। ব্যবসা বিস্তৃত হলে দোকানঘর ভাড়া নিতে পারেন।

পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকলে হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ নেওয়া ভালো। এখন এ লেখা পড়ে সাধারণ কিছু বিষয় জেনে নিতে পারেন। যেমন ছবি বাঁধাই করার জন্য ফ্রেম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কাঠের তুলনায় প্লাস্টিক বা গ্লাস ফ্রেমে বাঁধাই করা ব্যয়বহুল। তাই ভালো মানের কাঠ অথবা লোহা বা পিতল কেনা উচিত। সাধারণত ফুট বা ইঞ্চি হিসেবে ছবি বাঁধাই করা হয়। তাই প্রথমে ফ্রেমের ধরন জেনে নেওয়া ভালো। ক্রেতার রুচি অনুযায়ী অর্ডার নিন। এজন্য কয়েক প্রকার ফ্রেম প্রস্তুত রাখতে পারেন।

সব সময় মনে রাখবেন, ফটো বাঁধাইয়ের কাজ একটি সুন্দর শিল্প। আপনার কাজের জায়গা, বিজনেস কার্ড ও আচার-আচরণে যেন তা ফুটে ওঠে।
এ ব্যবসায় নির্দিষ্ট কোনো মৌসুম নেই। সারা বছর ধরে করতে পারবেন ব্যবসাটি। ব্যবসা বাড়ার পর দু’একজন কর্মী নিয়োগ দিতে পারেন।