এসএমই

বিজনেস আইডিয়া: পান-সুপারি বিক্রি

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় এমন ব্যবসা। এ ধরনের উদ্যোক্তার পাশে দাঁড়াতে শেয়ার বিজের সাপ্তাহিক আয়োজন

ক্ষুদ্র ব্যবসা পরিচালনা করে আপনিও স্বাবলম্বী হতে পারেন। এমনই একটি ব্যবসা পান-সুপারি বিক্রি করা। সামান্য পুঁজি দিয়ে এ ব্যবসা শুরু করা সম্ভব। বাংলাদেশের অনেক মানুষ আহারের পর পান খেতে পছন্দ করে। বয়স্কদের কাছে এর বেশ কদর রয়েছে। তাই এ ব্যবসায় লোকসানের আশঙ্কা নেই। বরং লাভের মুখ দেখা যায় সহজেই। যেসব পরিবারে বয়স্ক কিংবা শারীরিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি রয়েছে, তাদের দিয়েও এ ব্যবসা চালিয়ে বাড়তি উপার্জন সম্ভব।

প্রয়োজনীয় উপকরণ
# পান রাখার ট্রে
# মাঝারি ধরনের বালতি
# বিভিন্ন ধরনের কৌটা
# কাঁচামাল হিসেবে পান, সুপারি, চুন ও বিভিন্ন ধরনের জর্দা।

শুরু করবেন যেভাবে
হাতে অল্প পুঁজি থাকলেই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। পান ব্যবসায় উচ্চশিক্ষার প্রয়োজন হয় না। হিসাব কষা মোটামুটি জানলে শুরু করা যায়। এ ব্যবসার জন্য প্রথমে ছোট আকারে একটি দোকান দিতে হবে। এরপর লাভের টাকা দিয়ে দোকান বড় করতে পারেন। নিজ বাড়িতেও দোকান চালু করতে পারেন। এছাড়া রাস্তার পাশে, হাট-বাজারে বা কোনো বড় গাছের নিচে পানের দোকান দেওয়া যেতে পারে। পাইকারি দরে পান, সুপারি, জর্দা কিনে পানের খিলি বানিয়ে বিক্রি করতে হবে। অথবা শুধু পান কিনে খুচরা হিসেবেও বিক্রি করা যায়। এতেও লাভের মুখ দেখতে পাবেন। প্রয়োজনীয় পুঁজির জন্য স্থানীয় ঋণদানকারী ব্যাংক, সরকারি বা বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা থেকে শর্তসাপেক্ষে স্বল্প সুদে ঋণ নিতে পারেন। স্থায়ী উপকরণগুলো একবার কিনলে অনেকদিন ধরে কাজ করা যাবে। ব্যবসার শুরুতে এ খরচটি করতে পারলে পরবর্তী সময়ে শুধু কাঁচামাল কিনে ব্যবসা চালিয়ে নেওয়া সম্ভব। যে কোনো ব্যক্তি অল্প পুঁজিতে এ ব্যবসা করে লাভবান হতে পারে। ছোট আকারে অল্প পুঁজি বিনিয়োগ করে পান দোকানের ব্যবসা শুরু করা সম্ভব।

প্রশিক্ষণ
পানের ব্যবসা শুরু করার জন্য তেমন প্রশিক্ষণের প্রয়োজন নেই। এ ব্যাপারে অভিজ্ঞ কারও কাছ থেকে ধারণা নিয়ে ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। পরে ধীরে ধীরে আপনি নিজেই অভিজ্ঞ হয়ে উঠবেন।

সতর্কতা
পান দোকান সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলা উচিত। যেমন সুন্দর ব্যবহার। ক্রেতার সঙ্গে ভালো ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ভালো ব্যবহার পেলে দোকানে ক্রেতাসমাগম বেশি হয়। তাই এ বিষয়ে অবশ্যই সাবধান হতে হবে। দেখা যায়, অনেক দোকানি বেশি লাভের আশায় অধিক দাম রাখেন। এক্ষেত্রে এমন একটা দাম নির্ধারণ করতে হবে যাতে ক্রেতা-বিক্রেতা কারও ক্ষতি না হয়। পান দোকান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা জরুরি। খেয়াল রাখতে হবে, দোকানের আশপাশ যেন স্যাঁতসেঁতে না হয়।

 

 

সর্বশেষ..