প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

বিমা খাতে লেনদেন বাড়লেও দর বৃদ্ধি আর্থিক খাতে

রুবাইয়াত রিক্তা: টানা ৯ কার্যদিবস ঈদের ছুটি শেষে গতকাল ইতিবাচক গতিতে লেনদেন হয়েছে পুঁজিবাজারে। তবে লেনদেন কমেছে ১২০ কোটি টাকা। লেনদেন কমলেও সূচক ও শেয়ারদরে ছিল ইতিবাচক গতি। মোট লেনদেনের প্রায় এক চতুর্থাংশ ছিল বিমা খাতে। লেনদেন বেশি হলেও বিমা খাতে ছিল শেয়ার বিক্রির চাপ। বৃহৎ খাতগুলোর মধ্যে শেয়ার কেনার প্রবণতা বেশি ছিল আর্থিক, ওষুধ ও রসায়ন, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ, বস্ত্র ও প্রকৌশল খাতে। তবে গতকাল সবচেয়ে বেশি চাহিদা ছিল আর্থিক খাতের শেয়ারের।
মোট লেনদেনের ২৩ শতাংশ বা ৬৬ কোটি টাকা হয় বিমা খাতে। এ খাতে ৪৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটির প্রায় ১৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৮ টাকা ৪০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধিতে তৃতীয় অবস্থানে উঠে আসে। এছাড়া প্রগতি লাইফের দর সাড়ে আট শতাংশ বেড়ে চতুর্থ অবস্থানে উঠে আসে। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১২ শতাংশ। এ খাতে প্রায় ৬৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ইস্টার্ন কেব্লসের সোয়া সাত কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে প্রায় ১৬ টাকা। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে লেনদেন হয় ১১ শতাংশ। এ খাতে ৬৮ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা লেনদেন হয় এ খাতের ইউনাইটেড পাওয়ারের। দর বেড়েছে প্রায় ১০ টাকা। খুলনা পাওয়ারের সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে আড়াই টাকা। আর্থিক খাতে লেনদেন হয় ১০ শতাংশ। এ খাতে ৬৯ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। প্রায় সাত শতাংশ বেড়ে ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, সাড়ে ছয় শতাংশ বেড়ে মাইডাস ফাইন্যান্স, সোয়া ছয় শতাংশ বেড়ে ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, সোয় পাঁচ শতাংশ বেড়ে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ফাইনান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। এছাড়া ফাস ফাইন্যান্সের প্রায় ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। বস্ত্র খাতে ৫৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এ খাতের নিউ লাইন ক্লোথিংয়ের প্রায় সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে এক টাকা ২০ পয়সা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৬১ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। জেএমআই সিরিঞ্জের সোয়া ছয় কোটি টাকা লেনদেন হলেও চার টাকা দরপতন হয়। প্রায় ১০ শতাংশ দর বেড়ে সেবা ও আবাসন খাতের ইস্টার্ন হাউজিং দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। কোম্পানিটির প্রায় সাড়ে বার কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এক পর্যায়ে বিক্রেতা শূন্য হয়ে পড়ে কোম্পানিটি। জেড ক্যাটেগরির মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের দর প্রায় ১০ শতাংশ বেড়েছে। এ শেয়ারটিও হল্টেট হয়।

ট্যাগ »

সর্বশেষ..