বিশ্বে শীর্ষ পুঁজিবাজারগুলোয় সূচকের বড় পতন

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী শীর্ষস্থানীয় পুঁজিবাজারগুলোতে বড় ধরনের পতনের ঘটনা ঘটেছে। লেনদেন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের ডাও জোনসের সূচক ৮৩২ পয়েন্ট কমে যায়। এটি পুঁজিবাজারটির ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ পতনের ঘটনা। এছাড়া ভারতের মুম্বাই সেনসেক্সেও বড় পতনের ঘটনা ঘটেছে। এতে এক দিনেই দেশটির বিনিয়োগকারীরা তিন লাখ কোটি রুপি হারিয়েছেন। বিশ্বব্যাপী শীর্ষ পুঁজিবাজারে এ পতনকে ২০১৬ সালের পর অন্যতম খারাপ দিন হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। খবর: সিএনএন, রয়টার্স, টাইমস অব ইন্ডিয়া।
যুক্তরাষ্ট্রের ডাও জোনস পুঁজিবাজারে লেনদেন চলাকালে অধিকাংশ শেয়ারের লেনদেন ছিল নি¤œমুখী। এছাড়া চলতি মাসে প্রথমবারের মতো সূচক ২৬ হাজার পয়েন্টের নিচে নেমে যায়। সব মিলিয়ে পুঁজিবাজারটির সূচক তিন শতাংশের বেশি কমেছে। ডাও জোনসে গত ফেব্রুয়ারির পর এটিই সর্বোচ্চ পতনের ঘটনা। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের এসঅ্যান্ডপি’র সূচকও তিন শতাংশের ওপর কমেছে। এ অঞ্চলের মেক্সিকোর আইপিসির সূচক কমেছে ৩৬৯ পয়েন্ট। আর ব্রাজিলের বোভেসপা হারিয়েছে দুই হাজার ৪০৮ পয়েন্ট।
বিশ্বব্যাপী বাণিজ্যে অনিশ্চয়তা ও তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে অক্টোবরের শুরু থেকেই বিশ্বব্যাপী পুঁজিবাজারে এমন ধারা লক্ষ করা যাচ্ছে। এছাড়া ধারবাহিকভাবে সুদের হার বৃদ্ধির কারণে বিনিয়োগকারীরাও উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন। ফলে বাণিজ্য পরিস্থিতি আরও খারপের দিকে ধাবিত হচ্ছে। এরই মধ্যে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার ঝুঁকির বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)।
পুঁজিবাজারে সূচকের পতনের ধারা অব্যাহত রয়েছে ইউরোপেও। গতকাল বৃহস্পতিবারের লেনদেনে এ অঞ্চলের অধিকাংশ পুঁজিবাজারের সূচক এক থেকে দুই শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। সুইজারল্যান্ডের পুঁজিবাজারের সূচক দুই শতাংশের বেশি কমেছে। লেনদেনের একপর্যায়ে জার্মানির ডিএএক্সের সূচক ১৩৭ পয়েন্ট কমে যায়। ইউরোপের পুঁজিবাজারে বৃহস্পতিবার ১৮ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ পতনের ঘটনা ঘটেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।
বিশ্বব্যাপী পুঁজিবাজারে পতনের বড় ধাক্কা লেগেছে এশিয়ার পুঁজিবাজারগুলোতে। চীনের সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্চের সূচক প্রায় ১৪২ পয়েন্ট বা পাঁচ শতাংশ কমেছে। জাপানের নিক্কেই সূচক হারিয়েছে ৯১৫ পয়েন্ট। আর হংকংয়ের হ্যাংসেংয়ের সূচক কমেছে ৯৪২ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট।
বড় ধস নেমেছে ভারতের পুঁজিবাজারেও। গতকাল বৃহস্পতিবার বাজারে লেনদেন শুরুর পর থেকেই সূচক কমতে থাকে মুম্বাই সেনসেক্সে। এ পুঁজিবাজারে লেনদেন শেষে সূচক ৭৫৯.৭৪ পয়েন্ট কমে যায়। এর মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা এক দিনেই তিন লাখ কোটি রুপির বেশি অর্থ হারিয়েছেন বলে দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।
এদিকে ডলারের বিপরীতে ভারতীয় রুপির মান আরও ২৪ পয়সা কমে গেছে। গতকাল প্রতি ডলারের বিপরীতে ৭৪ রুপি ৪৫ পয়সা লেনদেন হয়েছে, যা রুপির পতনের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বৃদ্ধিসহ ভারতের অভ্যন্তরীণ নানা কারণে ডলারের বিপরীতে রুপির মান কমছে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।