বেক্সিমকো ফার্মার ঋণমান ‘এএ+’ ও ‘এসটি-১’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ঋণমান অবস্থান (ক্রেডিট রেটিং) নির্ণয় করেছে ঋণমান নির্ণয়কারী প্রতিষ্ঠান ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (সিআরআইএসএল)। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
কোম্পানিটি দীর্ঘ মেয়াদে রেটিং পেয়েছে ‘এএ+’ এবং স্বল্প মেয়াদে
‘এসটি-১’। ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন, ৩১ মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনের আলোকে এ রেটিং নির্ণয় করেছে।
৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য সাড়ে ১২ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই বছর কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে পাঁচ টাকা ৪৯ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ৬১ টাকা ৮২ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ২২২ কোটি ৬৭ লাখ টাকা।
কোম্পানিটির শেয়ারদর গতকাল এক দশমিক ১২ শতাংশ বা এক টাকা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৮৮ টাকা ৫০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৮৮ টাকা ৫০ পয়সা। দিনজুড়ে দুই লাখ ৯৩ হাজার ৫১৩টি শেয়ার ৫১১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ৬৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকা।
‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানি ১৯৮৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত ১৮ মাসের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের ১৫ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল, যা আগের এক বছরে ১০ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস দিয়েছে।
এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে সাত টাকা ৬৩ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৫৯ টাকা ৭০ পয়সা, যা আগের বছর ছিল যথাক্রমে চার টাকা ১৫ পয়সা ও ৫৬ টাকা ৮৭ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ২৯৪ কোটি ৮০ লাখ ৫০ হাজার টাকা, যা আগের বছর ছিল ১৫২ কোটি ৮৩ হাজার টাকা।