বেগুন গাছে টমেটো!

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সবজিচাষি বাবলু কোম্পানি বেগুন গাছে টমেটো ফলিয়ে তাক লাগিয়েছেন। টানা তৃতীয়বারের মতো এভাবে চাষ করে আশানুরূপ ফল পেয়েছেন তিনি। এর আগে কলা গাছ থেকে রাসায়নিক সার, আতা ও নিমপাতা থেকে কীটনাশক তৈরি ও ঢেঁড়শ গাছ থেকে পাটের বিকল্প আঁশ উদ্ভাবন করেছেন তিনি।
বাবলু কোম্পানি জানান, ‘প্রায় তিন বছর আগে পরীক্ষামূলকভাবে বেগুন গাছে কলম করে টমেটোর চাষ শুরু করি। এতে সফল হই। আর থামিনি, প্রতিবছর এই পদ্ধতিতে চাষ করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘প্রথমে চার বিঘা জমিতে বেগুন চাষ করি। আর ১০ কাঠা জমিতে টমেটো। বেগুন গাছে টমেটো ধরানোর জন্য ১০টি বেগুন গাছে টমেটোর ডোগা কেটে কলম করি। কয়েকদিন পর দেখা যায়, টমেটোর ডগাগুলো মরেনি, বেগুনের ডগার মতো বড় হচ্ছে। কলম করার মাসখানেক পরে দেখা যায়, বেগুন গাছে টমেটোর ডগায় টমেটো ধরেছে। এতে বেগুন গাছ থেকে একই সঙ্গে টমেটো ও বেগুন পাওয়া যায়। একেকটি গাছ থেকে প্রায় দুই কেজি টমেটো পাওয়া সম্ভব।’
মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের ছাতিয়ান মালিথাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা বাবলু সর্দার ওরফে বাবলু কোম্পানি। ২০০০ সালে ফুলকপি চাষ শুরু করেন। পরের বছর বেগুন, লাউ ও বাঁধাকপি চাষ করেন। পরে করলা, লাউ, কলা, চিচিঙ্গা ও পুঁইশাকের আবাদ করেন। এভাবেই বাড়তে থাকে তার সবজি চাষ। একসঙ্গে এত সবজি চাষ করে রীতিমতো বিপ্লব ঘটান। বাবলুর সবজি চাষের সাফল্য দেখে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ড. মোল্লা মাহমুদ হাসান উপজেলা পরিষদের আবাসিক এলাকার পরিত্যক্ত জমি চাষের ব্যবস্থা করেন।
বর্তমান উপজেলা পরিষদের আবাসিক এলাকায়ও বাবলু সবজি চাষ করছেন। নতুন উদ্ভাবনেও সিদ্ধহস্ত তিনি। ২০১১ সালের শেষের দিকে বাবলু কোম্পানি ঢেঁড়শ গাছ থেকে পাটের মতো আঁশ উদ্ভাবন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেন। ২০১২ সালে জনবিজ্ঞান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি রাজধানীর খামারবাড়ীতে স্বশিক্ষিত উদ্ভাবকদের নিয়ে দ্বিতীয় জনবিজ্ঞান উদ্ভাবন মেলার আয়োজন করা হয়। দুই দিনব্যাপী এই উদ্ভাবনী মেলায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ২৫ স্বশিক্ষিত উদ্ভাবক অংশ নেন। উদ্ভাবনী মেলায় উদ্ভাবনগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল বাবলু কোম্পানীর পাটের বিকল্প ঢেঁড়শের আঁশ উদ্ভাবন। ২০১৩ সালের ১২ মে পিকেএসএফের ২৩তম বর্ষপূর্তি ও উন্নয়ন মেলায় জনবিজ্ঞান উদ্ভাবক হিসেবে বক্তব্য রাখেন তিনি।
মিরপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানিয়েছেন, বাবলু কোম্পানি এখানের একজন
মডেল চাষি। তিনি এবার বেগুন গাছে টমেটোর কলম করে চাষ করেছেন। এটা একটি ভালো পদ্ধতি। এর মাধ্যমে অল্প জমিতে অল্প সময়ে অধিক সবজি উৎপাদন করা সম্ভব। বাড়ির ছাদে ও টবে চাষ করা যাবে।

কুদরতে খোদা সবুজ