বিশ্ব সংবাদ

ব্রিটিশ এয়ারওয়েজকে ২৩ কোটি ডলার জরিমানা

গ্রাহকের তথ্য চুরি

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ২০১৮ সালে কম্পিউটার হ্যাকিংয়ে শত শত যাত্রীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য চুরি হওয়ায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজকে ২২ কোটি ৯০ লাখ ৭০ হাজার ডলার জরিমানা করেছে ব্রিটেনের তথ্য কমিশন অফিস (আইসিও)। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের মূল কোম্পানি আইএজি গতকাল সোমবার এ তথ্য জানায়। খবর: বিবিসি।
এক বিবৃতিতে আইএজি জানায়, আইসিও দেশের তথ্য সুরক্ষা আইনের অধীনে এয়ারলাইনসকে একটি পেনাল্টি নোটিস ইস্যু করেছে। জরিমানার এ পরিমাণ ২০১৭ সালের ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বৈশ্বিক বিনিয়োগের এক দশমিক পাঁচ শতাংশ।
আইএজিএর প্রধান নির্বাহী উইলি ওয়ালস জানান, তারা এ জরিমানার প্রেক্ষাপটে আপিল করার বিষয়টি বিবেচনা করছেন। এয়ারওয়েজের পক্ষ থেকে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করতে সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের সিইও অ্যালেক্স ক্রুজ বলেন, এই শাস্তির খবরে তারা যারপরণাই বিস্মিত ও হতাশ হয়েছেন। এক বিবৃতিতে ক্রুজ বলেন, যাত্রীদের তথ্য হ্যাক হওয়ার পর আমরা অতিসত্বর আইনি ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা তদন্ত করেছি যেসব অ্যাকাউন্টের তথ্য চুরি হয়েছে সেখানে কোনো জালিয়াতি হয়নি। এ ঘটনার জন্য আমরা গ্রাহকদের কাছে ক্ষমা চাইছি।
ইউরোপীয় ইউনিয়ন তথ্য সুরক্ষা আইন কঠোর করার পর কয়েক মাস পর সেপ্টেম্বরে হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়ার কথা জানায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ। ২০১৮ সালের জুনে ওই ঘটনা ঘটে। গ্রাহকদের নাম, পোস্টাল, ই-মেইল ও ক্রেডিট কার্ডের তথ্য চুরি করে হ্যাকার। হ্যাকিংয়ের পর এয়ারওয়েজটি গ্রাহকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় ও ক্ষমা চেয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে। ওই সময় প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ক্রেডিট কার্ডে হওয়া প্রায় তিন লাখ ৮০ হাজার পেমেন্টে সাইবার আক্রমণ শনাক্ত করা গেছে। এমনকি হ্যাকারদের হাতে গ্রাহকদের নাম, ঠিকানা, ই-মেইল ঠিকানা, ক্রেডিট কার্ড নম্বর, সিকিউরিটি কোড চলে গেছে। এসব দিয়ে হ্যাকাররা অনায়াসে গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা চুরি করতে পারবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই গ্রাহকদের সাবধান করতে এবং প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ।

সর্বশেষ..