বড় পতন ঠেকাল বহুজাতিক কোম্পানি

হাসানুজ্জমান পিয়াস: বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম, ব্র্যাক ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, এবি ব্যাংক, গ্রামীণফোন, সিএমসি কামাল, ফু-ওয়াং ফুড ও ন্যাশনাল টিউবস লিমিটেডের ওপর ভর করে রোববার (৩ ডিসেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন শেষ হয়েছে। দিনশেষে লনদেন ৫৭৩ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। দিনশেষে ডিএসইর সার্বিক সূচক কমে ১০ দশমিক ৬৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

তথ্যমতে, সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ডিএসইতে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শুরু হয়। কিন্তু আধা ঘণ্টা পর থেকে বাজারের গতি পড়তে শুরু করে এবং শেষ পর্যন্ত একই চিত্র লক্ষ করা যায়। লেনদেনকে এগিয়ে রাখতে  বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম চার দশমিক ২৫, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স তিন দশমিক ৯২, গ্রামীণফোন এক দশমিক ২, সিএমসি কামাল দুই দশমিক ৯৪, ফু-ওয়াং ফুড দুই দশমিক ৯৯ ও ন্যাশনাল টিউবস লিমিটেড পাঁচ দশমিক ৬৪ শতাংশ ও ব্র্যাক ব্যাংক দশমিক ৪৬ শতাংশ ভূমিকা রাখে।

অন্যদিকে সূচক পতনে আইসিবি এক দশমিক ২০, পূবালী ব্যাংক দুই দশমিক ৪৬, মেঘনা পেট্রোলিয়াম এক দশমিক ৭০, স্কয়ার ফার্মা এক দশমিক ১৮, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক এক দশমিক পাঁচ শতাংশ ভূমিকা রাখে। তবে সূচকের বড় পতন ঠেকাতে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর বড় ভূমিকা ছিল। পতন ঠেকাতে বহুজাতিক কোম্পানি গ্রামীণফোন ১১ দশমিক ২১, লাফার্জ সুরমা দুই দশমিক এক ও ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো এক দশমিক ৭৬ শতাংশ ভূমিকা রাখে। তবে দরপতনের শীর্ষে ছিল বিবিধ খাতের কোম্পানি সাভার রিফ্রাক্টরিজ লিমিটেড।

এদিকে দিনভর ডিএসইতে মোট ৩২৮টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩১টি, কমেছে ১৫২টির এবং ৪৫টি কোম্পানি-ফান্ডের দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ডিএসইতে প্রায় ১৪ কোটি ৭১ লাখ শেয়ার ও ইউনিট এক লাখ ১০ হাজার বার হাতবদল হয়। দিনশেষে বাজারমূল্য দাঁড়িয়েছে ৫৭৩ কোটি ৭৬ লাখ ১৯ হাজার টাকা।