স্পোর্টস

ভারতের কাছে হেরে বাংলাদেশের পাশে উইন্ডিজ

 

ক্রীড়া ডেস্ক: টানা ম্যাচ জিতে আগেই সিরিজ দখলে করে নিয়েছিল ভারত। তাই দলটির জন্য গত পরশুর শেষ টি-টোয়েন্টি ছিল এক রকম নিয়মরক্ষার। তারপরও অবশ্য সফরকারীরা একটুও ছেড়ে কথা বলেনি। বরং ব্যাট-বলে আধিপত্য দেখিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭ উইকেটে উড়িয়ে দিয়েছে। এ হারে টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা এখন বাংলাদেশের পাশে চলে এসেছে। এ ফরম্যাটের ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ হারের তিক্ত রেকর্ড এখন বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের।
গায়ানায় গত পরশু সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ছয় উইকেটে ১৪৬ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাব দিতে নেমে শুরুটা ভালো না হলেও কোহলি ও ঋশব পান্টের হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ বল আগেই ৭ উইকেটে জিতে যায় ভারত। এর ফরে ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ নিজেদের করে স্বাগতিকদের হোয়াইটওয়াশেরও লজ্জায় ডুবিয়েছে সফরকারীরা। পরে শিরোপা উল্লাসে মাতে রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা।
আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ২০০৬-২০১৯ সাল পর্যন্ত খেলে ১১৩ ম্যাচে ৫৭ হারে দেখেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। একই সময়ে ৮৫ ম্যাচে ৫৭ ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের লজ্জার রেকর্ডে ভাগ বসাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ১১৪ ম্যাচে ৫৬ হার নিয়ে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরই রয়েছে শ্রীলঙ্কা।
আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে কমপক্ষে ৫০ ম্যাচ হেরেছে- নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ে। ১১৮ ম্যাচের ৪১টিতে হেরেছে ভারতীয় দল। পাকিস্তান ১৪৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে দলটি জিতেছে ৯০টিতে। হেরেছে ৫০ ম্যাচে।
সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে গত পরশু বল হাতে শুরুতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে চেপে ধরেন দীপক। ১৪ রানের মধ্যে তিনি ফিরিয়ে দেন স্বাগতিক টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে। নিজের প্রথম ওভারে এভিন লুইসকে এলবিডব্লিউ করার পর দ্বিতীয় ওভারে সুনীল নারিন ও শিমরন হেটমায়ারকে ফেরান ডানহাতি এ পেসার। তবে এক প্রান্ত আগলে থাকা কিরণ পোলার্ড মারমুখী ব্যাটিংয়ে ক্যারিবীয়দের পথ দেখানোর চেষ্টা করেন। তাকে বেশ সঙ্গ দেন নিকোলাস পুরান। তাদের মধ্যে ৫৬ বলে গড়ে ওঠে ৬৬ রানের জুটি। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ওই দুই ব্যাটসম্যানকে থামান নবদীপ সাইনি। ৪৫ বলে এক চার ও ৬টি ছয়ে ৫৮ রান করেন পোলার্ড।
দুই সেট ব্যাটসম্যান ফিরে যাওয়ার পর শেষদিকে কিছুটা ঝড় তোলেন রোভম্যান পাওয়েল। তার ২০ বলে এক চার ও ২ ছয়ে ৩২ রানে ভর করে স্বাগতিকরা পেয়ে যায় চ্যালেঞ্জিং স্কোর।
সহজ লক্ষ্যমাত্রার পেছনে ছুটতে গত পরশু শুরুতেই ২ ওপেনারকে হারিয়ে বিপদে পড়েছিল ভারত। কিন্তু তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও ঋশভ পান্ট ধরেন সফরকারীদের হাল। গড়ে তোলেন ১০৬ রানের জুটি। তাতেই জয়ের খুব কাছে চলে যায় রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা। শেষদিকে অবশ্য কোহলি ৪৫ বলে ছয়টি চারে ৫৯ রান করে ফিরলেও পান্ট জেতান দলকে। এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান ৪০ বলে চারটি চার ও তিনটি ছয়ে ৫৮ রান করে ছিলেন অপরাজিত।
বল হাতে মাত্র ৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন দীপক চাহার। আর পুরো টুর্নামেন্টে আলো ছড়িয়ে সিরিজসেরার পুরস্কার নিজের করে নিয়েছেন ক্রুনাল পান্ডিয়া।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২০ ওভারে ১৪৬/৬ (লুইস ১০, নারাইন ২, হেটমায়ার ১, পোলার্ড ৫৮, পুরান ১৭, পাওয়েল ৩২*, ব্র্যাথওয়েট ১০, অ্যালেন ৮*; ভুবনেশ্বর ০/১৯, দীপক চাহার ৩/৪, নবদীপ ২/৩৪, রাহুল চাহার ১/২৭, ওয়াশিংটন ০/২৩, পান্ডিয়া ০/৩৫)
ভারত: ১৯.১ ওভারে ১৫০/৩ (রাহুল ২০, ধাওয়ান ৩, কোহলি ৫৯, পান্ত ৬৫*, মনিশ ২*; কটরেল ০/২৬, থমাস ২/২৯, অ্যালেন ১/১৮, নারাইন ০/২৯, ব্র্যাথওয়েট ০/২৫, পল ০/২৩)
ফল: ভারত ৭ উইকেটে জয়ী
সিরিজ: তিন ম্যাচের সিরিজে ভারত ৩-০ এ জয়ী
ম্যাচসেরা: দীপক চাহার
সিরিজ সেরা: ক্রুনাল পান্ডিয়া

সর্বশেষ..