ভারতের বাজারে চোখ সৌদি আরামকোর

শেয়ার বিজ ডেস্ক: মহারাষ্ট্রে প্রস্তাবিত ভারতের বৃহত্তম তেল শোধনাগারসহ বেশ কিছু শোধনাগারের সম্প্রসারণ প্রকল্পে অংশীদার চায় সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি সৌদি আরামকো। ভারত সফরে গিয়ে গত শনিবার এ কথা জানান সৌদি তেলমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ। ভারতে পেট্রল পাম্প খোলা নিয়ে ভাবনাচিন্তার বিষয়েও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।
অতিরিক্ত আমদানিনির্ভরতা কমাতে পাঁচ বছরের মধ্যে মহারাষ্ট্রের রতœগিরি জেলায় রাজাপুরের কাছে বাবুলওয়াড়িতে দেশের বৃহত্তম তেল শোধনাগার ও পেট্রো-রসায়ন কেন্দ্র গড়ার পরিকল্পনার কথা ইতোমধ্যেই ঘোষণা করেছে ভারক সরকার। সেখানে সম্ভাব্য বিনিয়োগের পরিমাণ এক লাখ ৮০ হাজার কোটি রুপি। যৌথভাবে এটি নির্মাণ করবে রাষ্ট্রায়ত্ত ইন্ডিয়ান অয়েল, ভারত পেট্রোলিয়াম ও হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম। বছরে ছয় কোটি টন উৎপাদন ক্ষমতার এই শোধনাগারে অংশীদার হতে আগ্রহ দেখিয়েছে আরামকো। সংশ্লিষ্টদের মতে, এখন আরামকোর দৃষ্টি ভারতের বাজারের ওপরেই।
ফালিহ জানান, মহারাষ্ট্রে প্রস্তাবিত শোধনাগারে অংশীদারিত্ব নিতে কথাবার্তা শুরুর জন্য ইতোমধ্যেই দিল্লির সঙ্গে চুক্তি সই করেছেন তারা। ওই প্রকল্প এবং অন্ধপ্রদেশের পেট্রোকেম কমপ্লেক্সে অংশীদারিত্বের বিষয়ে সৌদি আরবের সঙ্গে যে কথা হয়েছে, শনিবার সে কথা জানান ভারতের তেলমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানও। একই সঙ্গে ফালিহ জানান, ভারতের আরও কিছু শোধনাগারেরও অংশীদারিত্ব নিতে তারা আগ্রহী।
বিশ্বে জ্বালানি তেলের চাহিদা সবচেয়ে দ্রুত বাড়ছে ভারতে। টেক্কা দিচ্ছে চীনকেও। এই লোভনীয় বাজার ধরতে তাই শোধনাগারে অংশীদারিত্ব নেওয়ার পাশাপাশি পেট্রলপাম্প খোলার কথাও ভাবছে আরামকো। এখন পেট্রল-ডিজেলের দর বাজারের হাতে ছেড়ে দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। সেই সুবিধা নিয়ে এ দেশে পাম্প খুলতে আগ্রহী বিপি, রসনেফ্টের মতো প্রতিষ্ঠান। সেই দৌড়ে যে অ্যারামকোও রয়েছে, তা ফালিহর কথায় স্পষ্ট। তিনি জানান, অবশ্যই তারা ওই বাজারে পা রাখতে আগ্রহী।