ভারতে পেট্রল-ডিজেলের পর দাম বাড়ল গ্যাসের

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ভারতে পেট্রল ও ডিজেলের দামের ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই এবার বাড়তে শুরু করেছে রান্নার গ্যাসের দাম। ভর্তুকিযুক্ত গ্যাসের দাম এক ধাক্কায় বেড়েছে দুই রুপি ৩৪ পয়সা এবং ভর্তুকিবিহীন গ্যাসের দাম বেড়েছে ৪৮ রুপি। খবর আনন্দবাজার।
গতকাল শুক্রবার এ দাম বাড়ার ফলে নয়াদিল্লিতে ভর্তুকিহীন গ্যাস (১৪ কেজি ২০০ গ্রাম)-এর দাম দাঁড়িয়েছে ৪৯৩ রুপি ৫৫ পয়সা। কলকাতায় ৪৯৬ রুপি ৬৫ পয়সা, মুম্বাইয়ে ৪৯১ রুপি ৩১ পয়সা এবং চেন্নাইয়ে ৪৮১ রুপি ৮৪ পয়সা। অন্য দিকে, ভর্তুকিবিহীন গ্যাসের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে কলকাতায় ৭২৩ রুপি ৫০ পয়সা, মুম্বাইয়ে ৬৭১ রুপি ৫০ পয়সা এবং চেন্নাইয়ে ৭১২ রুপি ৫০ পয়সা।
কর্নাটকের ভোটের ফল প্রাকাশের পর থেকেই জ্বালানি তেলের দাম হু হু করে বাড়তে শুরু করে ভারতজুড়ে। টানা ১৬ দিন পেট্রল-ডিজেলের দাম নজিরবিহীনভাবে বাড়ে। পেট্রলের দাম ৮০ রুপি ছাড়িয়ে যায়। ডিজেলের দামও রেকর্ডমাত্রা ছুঁয়ে ফেলে। টানা ১৬ দিন দাম বাড়ার পর ৩০ মে পেট্রলের দাম কমে এক পয়সা, ৩১ মে কমে সাত পয়সা এবং এক জুন ছয় পয়সা কমে নয়াদিল্লিতে দাম দাঁড়িয়েছে ৭৮ রুপি ২৯ পয়সায়।
বিশ্ববাজারে অশোধিত তেলের দাম কমলে ২০১৪ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৬ সালের জানুয়ারির মধ্যে ৯ বার জ্বালানি তেলে শুল্ক বাড়ায় ভারত। পরে তা কমেছে মাত্র একবার। ওই ১৫ মাসে পেট্রল ও ডিজেলে শুল্ক বাড়ে যথাক্রমে ১১ দশমিক ৭৭ এবং ১৩ দশমিক ৪৭ রুপি। তবে এখন এক রুপি উৎপাদন শুল্ক কমানো হলে ১৩ হাজার কোটি রুপি রাজস্ব ক্ষতি হবে বলে জানানো হয়েছে। এতে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া শক্ত হবে বলে মনে করছে ভারত সরকার।
এ জন্য সাধারণ মানুষকে স্বস্তি দিতে ভ্যাট কমাতে রাজ্য সরকারগুলোকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তবে ঘাটতি সামলাতে তেলে বসানো শুল্কই একমাত্র ভরসা কি-নাÑতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিকে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির প্রধান অমিত শাহ আশ্বাস দিয়েছেন, তেলের দাম বাড়ার বিষয়ে কয়েক দিনের মধ্যেই একটি সমাধানে আসবে সরকার।