ভারত ও পাকিস্তান ভ্রমণে মার্কিন নাগরিকদের সতর্কতা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ভারত ও পাকিস্তান ভ্রমণে মার্কিন নাগরিকদের আরও বেশি সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে নতুন গাইড বই প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন। মার্কিন নাগরিকদের জন্য কোন দেশ কতটা নিরাপদ, তাদের কোথায় যাওয়া উচিত, আর কোথায় নয় এসব পরামর্শই বইটিতে আছে। গত বুধবার এটি প্রকাশ করা হয়। এতে দেশগুলোকে চারটি স্তরে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে ভারত আছে দ্বিতীয় স্তরে। পাকিস্তানকে তৃতীয় পছন্দের স্থানে রাখতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

তৃতীয় স্তরের দেশগুলোতে যাওয়ার আগে বারবার ভেবে দেখতে বলা হয়েছে মার্কিনিদের। সন্ত্রাসের কারণে পাকিস্তানের বেলুচিস্তান, খাইবার পাখতুনখোয়া এবং কেন্দ্রশাসিত ফাতা উপজাতি এলাকাকে ‘ডু নট ট্রাভেল’ শ্রেণিতে রাখা হয়েছে। আজাদ ও জম্মু কাশ্মীরকেও এই শ্রেণিতে রাখা হয়েছে, কারণ এখানেও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও সশস্ত্র সংঘাত বিদ্যমান।

ভারতে ভ্রমণ করতে হলে অপরাধ ও সন্ত্রাসের কারণে মার্কিন নাগরিকদের অতিরিক্ত সাবধান থাকতে হবে। কিন্তু ভারত অধিকৃত কাশ্মীরকেও রাখা হয়েছে ‘ডু নট ট্রাভেল’ শ্রেণিতে। এখান থেকে শুধু বাদ রাখা হয়েছে পূর্বাঞ্চলীয় লাখাদ প্রদেশ ও তার রাজধানী লেহ। এখানকার সমস্যার কারণ বলা হয়েছে সন্ত্রাস ও বেসামরিক অস্থিতিশীলতা। এসব এলাকা হলো ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে। এখানে রয়েছে সশস্ত্র সংঘাত।

পাকিস্তানবিষয়ক উপদেষ্টা বলেছেন, সন্ত্রাসীরা সব সময় সেখানে হামলার পরিকল্পনা করে থাকে এবং বিনা সতর্কতায়ই হামলা চালিয়ে থাকে। বলা হয়েছে, সেখানে সন্ত্রাসীরা পর্যটন এলাকা, যানবাহনের স্থান, শপিং মল, সেনা ও সরকারি স্থাপনা, বিমানবন্দর, বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল, হাসপাতাল, উপাসনালয় এবং স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন স্থানকে টার্গেট করে।

উপদেষ্টারা মার্কিন নাগরিকদের জানান, নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে পাকিস্তানে তাৎক্ষণিকভাবে নাগরিকদের সহায়তা দেওয়া সম্ভব হবে না মার্কিন কর্তৃপক্ষের পক্ষে।

মার্কিন সরকারি কর্মকর্তাদের পাকিস্তানে ভ্রমণ নিষিদ্ধ। তাদের মার্কিন দূতাবাসের বাইরে যাওয়ার ব্যাপারেও নেওয়া হয়েছে অতিরিক্ত সতর্কতা। কারণ যে কোনো সময়ই পরিস্থিতি বদলে যেতে পারে। তারা বলেছেন, ‘অতীতেও মার্কিন কূটনীতিক ও কূটনৈতিক এলাকা সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছে।’

আফগানিস্তানের মতো দেশগুলো রয়েছে চতুর্থ স্তরে। এ স্তরের দেশগুলোতে নাগরিকদের যেতে নিষেধ করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ। আর প্রথম স্তরে যে দেশগুলো রয়েছে সেগুলোতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে সাধারণ সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

পুরোনো সব তালিকা পাল্টে নতুন এ স্তর বিন্যাস করা হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে সব দেশের নামই আছে। একই দেশের মধ্যে বিভিন্ন জায়গা সম্পর্কেও নিরাপত্তাসংক্রান্ত আলাদা আলাদা এবং স্পষ্ট নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে গাইড বুকে।

ভারত ভ্রমণে বাড়তি সতর্কতার বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর বলছে, এ মুহূর্তে ভারতে বাড়তে থাকা অপরাধের মধ্যে ধর্ষণ অন্যতম। যৌন হেনস্তার মতো নৃশংস অপরাধ পর্যটনস্থলগুলোতে হয় বলেও পর্যটকদের সাবধান করা হয়েছে।