ভার্চুয়াল মুদ্রায় বাণিজ্য নিষিদ্ধ করতে আইন করছে দক্ষিণ কোরিয়া

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিটকয়েনের মতো ভার্চুয়াল মুদ্রা ও এর মাধ্যমে করা বাণিজ্য নিষিদ্ধ করার লক্ষ্যে একটি আইন করার পরিকল্পনা করছে দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটির বিচারমন্ত্রী জানিয়েছেন, ভার্চুয়াল মুদ্রা দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য একটি বড় উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। খবর বিবিসি।
এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার বেশ কয়েকটি ভার্চুয়াল মুদ্রা বিনিময় সংস্থায় কর ফাঁকির অভিযোগে অভিযান চালিয়েছে কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে বিশ্ববাজারে বিটকয়েনের দাম আরও সাত শতাংশ কমে ১৩ হাজার ৮০০ ডলারের নিচে নেমে গেছে। যদিও উত্তর কোরিয়ার এ সিদ্ধান্ত বিটকয়েনের দাম কমার জন্য সরাসরি দায়ী নয় বলে মনে করা হচ্ছে।
ভার্চুয়াল মুদ্রার মাধ্যমে খুব কমই বাণিজ্য হয়ে থাকে ও কমসংখ্যক মানুষ এ ধরনের মুদ্রা ব্যবহার করে থাকেন। ব্যাপক চাহিদার কারণে বিটকয়েনের মতো ভার্চুয়াল মুদ্রার মান গত বছরজুড়েই ব্যাপক ওঠানামা করে। আর অনভিজ্ঞ বিনিয়োগকারীদের এ ধরনের অর্থের স্রোতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে ব্যাপক উদ্বেগের জš§ দেয়।
দক্ষিণ কোরিয়ার বিচারমন্ত্রী পার্ক স্যাং কি বলেছেন, ভার্চুয়াল মুদ্রার বিষয়ে গভীর উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে এবং বিনিময়ের মাধ্যমে ভার্চুয়াল মুদ্রার বাণিজ্য বন্ধ করার লক্ষ্যে বিচার মন্ত্রণালয় একটি বিল নিয়ে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে।
এর মাধ্যমে এটা পরিষ্কার, দেশটি এ ধরনের মুদ্রার
বিনিময় সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেবে। ইতোমধ্যে দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম ভার্চুয়াল মুদ্রা পরিচালনাকারী সংস্থা বিটহাম্বে অভিযান চালিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংস্থার একজন মুখপাত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, এ-সংক্রান্ত কাগজপত্র ও দ্রব্যসামগ্রীর বিষয়ে কর কর্মকর্তারা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।
এর আগে গত ডিসেম্বরেই ভার্চুয়াল মুদ্রা বিশেষ করে বিটকয়েনের মতো মুদ্রার অস্থির বাজার নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া শুরু করে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার। যদিও এর অনেক আগে থেকে ব্যাপক অস্থির হয়ে ওঠে বিশ্বের ভার্চুয়াল মুদ্রাবাজার। আর দক্ষিণ কোরিয়াকে বিটকয়েন বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ বাজার হিসেবে গণ্য করা হয়।
এ ধরনের ভার্চুয়াল মুদ্রা বিনিময়ের ক্ষেত্রে ইতোমধ্যে বেশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে এশিয়ার অপর শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ চীন।