মুড়াপাড়া জমিদারবাড়ি

মুড়াপাড়া জমিদারবাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত। প্রাচীন ঐতিহ্যের ধারক এ জমিদারবাড়ি। ঘুরে আসতে পারেন দলবল নিয়ে। এর আগে জেনে নিন, জমিদারবাড়িটি সম্পর্কে কিছু তথ্য। জমিদার রামরতন ব্যানার্জি বাড়িটির নির্মাণকাজ শুরু করেন। তবে কাজ শেষ হয় জগদীশ চন্দ্র ব্যানার্জির সময়।

 

জমিদারবাড়ির খুঁটিনাটি

নানা বৈচিত্র্যপূর্ণ কারুকার্যের ছোঁয়া রয়েছে জমিদারবাড়িজুড়ে। এতে রয়েছে প্রায় একশটি কক্ষ। সব কক্ষই দেখার মতো। তবে কাছারিঘর, অতিথিশালা, নাচঘর, পূজামণ্ডপ ও বৈঠকখানা তুলনামূলক বেশি আকর্ষণীয়।

বর্তমানে জমিদারবাড়ির মূল ভবনটি মুড়াপাড়া ডিগ্রি কলেজ হিসেবে ব্যবহƒত হচ্ছে। এর পাশে ১৯৯৫ সালে আরও একটি প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ করা হয়। আমাদের দেশের অনেক জমিদারবাড়ির চেয়ে তুলনামূলক ভালো অবস্থায় রয়েছে এটি।

 

ইতিহাস

জমিদার রামরতন ব্যানার্জি ১৮৮৯ সালে ৪০ হেক্টর জমির ওপর নির্মাণ শুরু করেন মুড়াপাড়া জমিদারবাড়ি। তিনি নাটোর স্টেটের কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। তার সততার কারণে একটি উচ্চ পদে উন্নীত হন। কিন্তু প্রচলিত আছে, রামরতন ব্যানার্জি শুধু এই বাড়ির ভিত্তি ও কাঠামো তৈরি করেছিলেন। তার মৃত্যুর পর

ছেলে প্রতাপ চন্দ্র ব্যানার্জি ১৮৮৯ সালে পুরোনো বাড়ি ছেড়ে পেছনে আরও একটি প্রাসাদ তৈরি করেন। কথিত আছে, ১৯০৯ সালে জগদীশ চন্দ্র ব্যানার্জি ভবনটির নির্মাণ কাজ শেষ করেন।

 

যেভাবে যেতে হয়

ঢাকা থেকে ভৈরবগামী বাসে রূপসী বাসস্ট্যান্ড অথবা ভুলতা নামতে হবে। তারপর সরাসরি রিকশাযোগে জমিদারবাড়ি যাওয়া যায়। রূপসী বাসস্টেশন থেকে সিএনজিচালিত ট্যাক্সিতেও মুড়াপাড়া জমিদারবাড়ি যাওয়া যায়।