মে মাসে ৩০ হাজার আবাসিক গ্যাগ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করল তিতাস

অবৈধ সংযোগ ও বকেয়া বিল

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার ও বকেয়া বিল না দেওয়ায় গত মে মাসে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে ২৯ হাজার ৯৫৩টি আবাসিক এলাকার চুলার গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিক লাইন বিচ্ছিন্ন ও জরিমানা আদায় করেছে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি। গতকাল সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানায় প্রতিষ্ঠানটি।
ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্যাস কারচুপি রোধকল্পে কোম্পানির বিশেষ পরিদর্শনের পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অবৈধ লাইন সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার করায় ৯ মে গাজীপুরের মনিপুরে মেসার্স ভূঁইয়া বেকারি ও একটি অজ্ঞাতনামা হোটেলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেসার্স ভূঁইয়া বেকারকে আড়াই লাখ টাকা ও একটি হোটেলকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
এছাড়া বিভাগীয় ভিজিল্যান্স টিম কর্তৃক অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার করায় সাভার এলাকায় ৬ মে মেসার্স আটলান্টা স্টিল অ্যান্ড টেকনোলজি, মেসার্স জেএস অ্যাপারেলস ও মেসার্স ইপিক গার্মেন্ট, ৯ মে মেসার্স প্রগতি লেদার কমপ্লেক্স, ২৪ মে মেসার্স ফজলুল হক স্টিল অ্যান্ড রি-রোলিং, মেসার্স টার্গেট ফ্যাশন ও মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া এলাকায় ৭ মে ঘরোয়া হোটেল অ্যান্ড রেন্টুরেন্ট, তাকওয়া হোটেল অ্যান্ড রেন্টুরেন্ট, বাংলা হোটেল ও নিউ ঢাকা মিষ্টি হোটেলের গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। আর অনুমোদন অতিরিক্ত স্থাপনায় গ্যাস ব্যবহার করায় ১৫ মে গাজীপুরের সফিপুরে মেসার্স আরএল ইয়ার্ন ডাইং (শিল্প ও ক্যাপটিভ)-এর গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কোম্পানির বিভাগীয় টিম কর্তৃক অভিযানকালে গাজীপুর, গজারিয়া ও আড়াইহাজার থানা, খিলগাঁওসহ বিভিন্ন এলাকায় ৩/৪, ১ ও ২ ব্যাসের মোট ৭৭.০৩ কিমি. অবৈধভাবে স্থাপিত গ্যাস পাইপলাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এর ফলে প্রায় ২৯ হাজার ৯৫৩ টি চুলার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মে মাসে ১৩ জন অবৈধ গ্যাস ব্যবহারকারীদের মোট ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।