প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

মোট লেনদেনের অর্ধেকের বেশি বিমা ও বস্ত্র খাতে

রুবাইয়াত রিক্তা: সপ্তাহের তৃতীয় দিনে গতকাল পুঁজিবাজারে ইতিবাচক গতি ফিরেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক ও বেশিরভাগ শেয়ারদর বাড়লেও লেনদেন সামান্য কমেছে। তবে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার কেনার প্রবণতা দেখা গেছে। গতকাল মোট লেনদেনের অর্ধেকের বেশি হয়েছে বিমা ও বস্ত্র খাতে। এ দুই খাত মিলে লেনদেন হয়েছে মোট লেনদেনের ৫১ শতাংশ। তবে বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেনার আগ্রহ বেশি ছিল বস্ত্র খাতের কোম্পানির। অন্যদিকে বিমা খাতে লেনদেন বেশি হলেও কেনার পাশাপাশি বিক্রির চাপও ছিল। এছাড়া প্রকৌশল ও আর্থিক খাতেও কেনার প্রবণতা বেশি ছিল। ছোট খাতগুলোর মধ্যে সেবা ও আবাসন খাত শতভাগ ইতিবাচক ছিল।
গতকাল দুই বিমা খাত মিলে লেনদেন হয় ২৭ শতাংশ। এ খাতে ৬৩ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটির শেয়ারদর প্রায় পাঁচ টাকা বেড়ে দর বৃৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্সের ১০ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ৭০ পয়সা দরপতন হয়। এছাড়া ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্সের সোয়া ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে এক টাকা ৩০ পয়সা। ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রায় ৯ কোটি টাকা লেনদেন হলেও দরপতন হয়। এছাড়া রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্সের পৌনে আট শতাংশ, এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের সাড়ে সাত শতাংশ দর বেড়ে কোম্পানি দুটি শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করে। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ২৪ শতাংশ। এ খাতে ৮০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালকায় অবস্থান করে বস্ত্র খাতের নূরানী ডায়িং, জাহিন টেক্সটাইল, মালেক স্পিনিং, রিজেন্ট টেক্সটাইল, তোসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ, সায়হাম টেক্সটাইল। এসব শেয়ারের দর ছয় থেকে প্রায় ১০ শতাংশ বেড়েছে। এর মধ্যে নূরানী ডায়িংয়ের সাড়ে ১৪ কোটি টাকা, ড্রাগন সোয়েটারের সাড়ে ১১ কোটি টাকা লেনদেন হয়। নিউ লাইন ক্লোথিংয়ের সাড়ে ৯ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ১০ পয়সা দরপতন হয়। প্যাসিফিক ডেনিমস ও কাট্টলি টেক্সটাইলের সাড়ে আট কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৮০ পয়সা ও এক টাকা ১০ পয়সা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে লেনদেন হয় ৯ শতাংশ। এ খাতে ৫০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। জেএমআই সিরিঞ্জের সোয়া ১৪ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে দুই টাকা ৭০ পয়সা। লেনদেন সামান্য পরিমাণে হলেও প্রকৌশল খাতে ৬৫ শতাংশ, আর্থিক খাতে ৬৯ শতাংশ, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ৭৭ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। টেলিযোগাযোগ খাতের গ্রামীণফোনের দর ছয় টাকা ৭০ পয়সা বেড়েছে। যা সূচকের বৃদ্ধিতে ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে।

 

ট্যাগ »

সর্বশেষ..