শেষ পাতা

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন সীমা বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক: মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের (এমএফএস) লেনদেন সীমা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে এমএফএস সেবার আওতায় খোলা ব্যক্তি হিসাবগুলোতে দিনে সর্বোচ্চ পাঁচবারে সর্বমোট ৩০ হাজার টাকা ক্যাশ-ইন বা জমা করা যাবে। মাসে সর্বোচ্চ ২৫ বারে সর্বমোট দুই লাখ টাকা ক্যাশ-ইন করা যাবে। আগে এই সীমা ছিল দৈনিক সর্বোচ্চ দুবারে সর্বমোট ১৫ হাজার টাকা এবং মাসে সর্বোচ্চ ২০ বারে সর্বমোট এক লাখ টাকা।
এছাড়া দৈনিক ক্যাশ-আউট বা নগদ উত্তোলন সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে সর্বোচ্চ পাঁচবারে সর্বমোট ২৫ হাজার টাকা। আগে এই সীমা ছিল দৈনিক সর্বোচ্চ দুবারে সর্বমোট ১০ হাজার টাকা। এছাড়া নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী মাসে সর্বোচ্চ ২০ বারে সর্বমোট এক লাখ ৫০ হাজার টাকা ক্যাশ-আউট করা যাবে। আগে এই সীমা ছিল অনধিক ১০ বারে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা।
ক্যাশ-ইন ও ক্যাশ-আউট ছাড়াও ব্যক্তি হিসাব থেকে ব্যক্তি হিসাবের (পিটুপি) লেনদেন সীমা বাড়িয়ে দিনে সর্বমোট ২৫ হাজার টাকা এবং মাসে সর্বমোট ৭৫ হাজার টাকা পাঠানোর সুযোগ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আগে এই সীমা ছিল দৈনিক সর্বমোট ১০ হাজার টাকা এবং মাসিক সর্বমোট ২৫ হাজার টাকা।
গতকাল রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিসটেমস বিভাগ থেকে এ-সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে এমএফএস প্রদানরত ব্যাংক ও সাবসিডিয়ারির প্রধান নির্বাহীদের পাঠানো হয়েছে।
সার্কুলারে আরও বলা হয়, একজন গ্রাহক তার ব্যক্তি মোবাইল হিসাবে সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা স্থিতি রাখতে পারবেন। ‘বাংলাদেশ এমএফএস নীতিমালা ২০১৮’-এর ৫নং সেকশনে বর্ণিত অন্যান্য সেবা, যেমন পিটুবি, বিটুপি, জিটুপি, পিটুজি, বিটুবি, মার্চেন্ট পেমেন্ট, অনলাইন ও ই-কমার্স পেমেন্টসের লেনদেনের ক্ষেত্রে এ ধরনের কোনো লেনদেন সীমা প্রযোজ্য হবে না।
জানা গেছে, ডাক বিভাগের ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস ‘নগদ’ ব্যাপক হাঁকডাক দিয়ে কার্যক্রম শুরু করেছে। ব্যাংকলেড মডেলের মোবাইল ফাইন্যান্সি সার্ভিসেসের (এমএফএস) মতো হলেও ‘নগদ’-এর লেনদেন সীমা বেশি হওয়ায় এমএফএস সেবার প্রতিযোগিতা সক্ষমতা নিয়ে প্রথম থেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন এ খাতসম্পৃক্তরা।
লেনদেন সীমা বাড়ানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলারে বলেছে, এমএফএস একটি ক্রমবিকাশমান সেবা, যা বিগত কয়েক বছর ধরে আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। দেশের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে এ সেবা বর্তমানে নতুন খাত সম্প্রসারণে বিশেষ করে ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে আগত রেমিট্যান্স বিতরণ, ই-কমার্স, ক্ষুদ্র ব্যবসা, বেতন-ভাতা প্রদান প্রভৃতি ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।
বাংলাদেশ ব্যাংক আরও বলেছে, পেমেন্ট ইকো সিসটেমের পরিবর্তিত প্রেক্ষাপট বিবেচনায় এমএফএসের সুশৃঙ্খল ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে ব্যক্তি হিসাবের লেনদেন সীমা পুনর্নির্ধারণ করা হলো।
বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত মার্চ পর্যন্ত দেশে ১৬টি ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার আওতায় মোট ছয় কোটি ৭৩ লাখ গ্রাহক নিবন্ধন করেছেন। এর মধ্যে তিন কোটি ২৩ লাখ গ্রাহক সক্রিয় রয়েছেন। গত মার্চে এই সেবার আওতায় প্রতিদিন গড়ে এক হাজার ১১৮ কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়েছে।
গতকালের সার্কুলারে এজেন্টদের লেনদেনের বিষয়েও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একজন এজেন্ট দিনে পাঁচবারের বেশি নিজের এজেন্ট অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দিতে পারবে না। এক এজেন্ট হিসাব থেকে অন্য এজেন্ট হিসাবে অর্থ জমা, অর্থ স্থানান্তর বা অর্থ উত্তোলন করা যাবে না।
ট্যাগ »

সর্বশেষ..