বিশ্ব বাণিজ্য

যুক্তরাষ্ট্রের চাপে আত্মসমর্পণ করবে না চীন

শেয়ার বিজ ডেস্ক: শুল্কের বোঝা চাপিয়ে চীনকে কোণঠাসা করতে চাইছে যুক্তরাষ্ট্র। বাণিজ্যযুদ্ধের মধ্যেই সম্প্রতি আরও ২০ হাজার কোটি ডলারের চীনা পণ্যে আমদানি শুল্ক বাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এ চাপে আত্মসমর্পণ করবে না চীন। গতকাল সোমবার চীন স্পষ্ট বলেছে, বাইরের কোনো চাপে তারা ভীত হবে না। খবর: রয়টার্স।
চীন বলেছে, কোনো পক্ষই বিজয়ী হবে না বলে তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না। তবে এ ধরনের যুদ্ধে দেশটির ভয় নেই বলেও জানিয়েছে চীন। চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির ‘পিপলস ডেইলি’তে প্রকাশিত এক সংবাদ ভাষ্যে এ মন্তব্য করা হয়েছে। পিপলস ডেইলি’র সংবাদ ভাষ্যকে চীন সরকারের রাষ্ট্রীয় অবস্থান বলে মনে করা হয়।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে রফতানি করা প্রতিটি পণ্যের ওপর শুল্কারোপের হুমকি দেওয়ার পর বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা এল। দৈনিকটি জানায়, বাণিজ্যিক মতপার্থক্য নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার জন্য চীনের দরজা সব সময় খোলা রয়েছে। তবে নিজের বাণিজ্যিক নীতির সঙ্গে চীন যেমন আপস করবে না, তেমনি নিজের অগ্রাধিকারের বিষয়গুলোতে ছাড় দিতেও রাজি নয় বেইজিং।
এর আগে শুক্রবার চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী লিউ হি একই ধরনের মন্তব্য করে জানিয়েছিলেন, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সহযোগিতা হচ্ছে শ্রেষ্ঠ পন্থা, তবে নিজের মৌলিক নীতির প্রশ্নে আপস করবে না বেইজিং।
চীন ও যুক্তরাষ্ট্র তাদের কয়েক মাসব্যাপী চলা বাণিজ্য মতবিরোধ নিয়ে কোনো চুক্তিতে উপনীত হতে ব্যর্থ হওয়ার পর বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হলো। ওই আলোচনার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনকে এক মাসের আলটিমেটাম দিয়ে বলেছেন, এ সময়ের মধ্যে বাণিজ্য চুক্তি না হলে চীন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে রফতানি করা প্রতিটি পণ্যের ওপর শুল্কারোপ করবে ওয়াশিংটন।
বহুদিন ধরেই বৈরী সম্পর্কের মধ্যে গত বছর যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে বাণিজ্যযুদ্ধ শুরু হয়। একে অন্যের ওপর কয়েক বিলিয়ন ডলার শুল্কারোপ করে বাণিজ্যযুদ্ধের দিকে এগিয়ে গেছে তারা। উভয় দেশের অর্থনীতিতে এর প্রভাব বুঝতে পেরে এ বাণিজ্যযুদ্ধ অবসানে আলোচনা শুরু করে দু’দেশ। কিন্তু আলোচনা চলামান থাকা অবস্থায় ট্রাম্প শুল্ক বাড়িয়ে বাণিজ্যযুদ্ধ উসকে দিয়েছেন। কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের দুদিনব্যাপী বাণিজ্য আলোচনা শেষ হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে এ আলোচনা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে দু’দেশ।

সর্বশেষ..



/* ]]> */