রফতানিকারকদের সুযোগ-সুবিধা

রফতানি বাণিজ্য উন্নয়নের জন্য রফতানিকারকরা বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পেয়ে থাকেন। রফতানির ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য সরকার নানা সুবিধা দেয়। ওইসব সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে একদিকে যেমন ব্যবসার উন্নয়ন সাধন করা যায়, অন্যদিকে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নও ত্বরান্বিত হয়।

যেসব সুবিধা পাওয়া যায়
# কৃষিপণ্যসহ দেশীয় কাঁচামাল দিয়ে তৈরি মূল্য সংযোজিত পণ্যের রফতানিকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে নগদ আর্থিক সহায়তা করা হয়
# বিদেশি এয়ারলাইনসের কার্গো সার্ভিসের সুবিধা সম্প্রসারণের জন্য রয়্যালটি প্রত্যাহার করা হয়
# রফতানিসহায়ক সার্ভিসের ওপর ভ্যাট প্রত্যর্পণ সহজ করে দেওয়া হয়
# বন্ডের সুবিধা দেওয়া হয়
# জাতীয় রফতানি ট্রফি দেওয়া হয়
# শুল্কমুক্ত মূলধনি যন্ত্রপাতি আমদানির সুবিধা পাওয়া যায়
# রফতানিকারকদের বিদেশে সফরের জন্য প্রাপ্য বৈদেশিক মুদ্রার বিপরীতে ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হয়
# শাকসবজি কিংবা পচনশীল পণ্যের জন্য রাজশাহী ও সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে সরাসরি বিমান বুকিং সুবিধা পাওয়া যায়
# সর্বোচ্চ ও বিশেষ অগ্রাধিকারভুক্ত খাতের অন্তর্ভুক্ত পণ্যের জন্য বিভিন্ন ধরনের সুবিধা রয়েছে
# রফতানিযোগ্য পণ্যের উন্নয়ন, বাজার উপযোগীকরণ ও বিপণন সুবিধা সম্প্রসারণে রফতানি উন্নয়ন তহবিল গঠন
# রফতানি ঋণের মেয়াদকাল ১৮০ দিন হতে ২৭০ দিন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়
# বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়
# ফ্ল্যাট রেট ভিত্তিতে ডিউটি ড্র-ব্যাক প্রাপ্তির সুবিধা
# বিদেশে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা ও একক প্রদর্শনীর আয়োজন এবং অন্যান্য বাজার উন্নয়ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়
# তৈরি পোশাকের সব ক্যাটেগরিতে শুল্কমুক্তভাবে নমুনা আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়
# কাঁচামাল আমদানির বিধিনিষেধগুলো শিথিল করা হয়
# আকাশপথে ফলমূল ও শাকসবজিসহ বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত সব পণ্য রফতানির ক্ষেত্রে বিমান ভাড়ায় সুবিধা পাওয়া যায়

তথ্যসূত্র: এসএমই ফাউন্ডেশন