সারা বাংলা

রমজান উপলক্ষে সৈয়দপুরে বাজার পর্যবেক্ষণ শুরু

প্রতিনিধি, সৈয়দপুর (নীলফামারী): নীলফামারীর সৈয়দপুরে পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাজার পর্যবেক্ষণ কমিটির তৎপরতা গতকাল মঙ্গলবার শুরু হয়েছে। রোজার প্রথম দিন এ কার্যক্রম শুরু হলে শহরের চিত্র পাল্টে যায়। তবে উপজেলা বাজার মনিটরিং কমিটির সভার সিদ্ধান্ত মানছেন না মাংস ব্যবসায়ীরা। তারা সভার সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে প্রতি কেজি গরুর মাংস ৪৮০ টাকার পরিবর্তে ৫০০ টাকা দরে বিক্রি করছেন।
শহর ঘুরে দেখা গেছে, যানজট নিয়ন্ত্রণে এর আগে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্তমতে ট্রাফিক বিভাগের সহায়তায় অটোরিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। নির্ধারিত পয়েন্টের বাইরে অটোরিকশা প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। ফলে শহরবাসীর মাঝে অটোরিকশার যন্ত্রণা যেমন লাঘব হয়েছে, তেমনি যানজট পরিস্থিতিরও উন্নতি হয়েছে।
কমিটির তৎপরতার কারণে হোটেল-রেস্তোরাঁগুলোতেও পরিবর্তন লক্ষ করা গেছে। হোটেল মালিকরা নির্দিষ্ট সীমারেখার মধ্যেই ইফতার সামগ্রী বেচাকেনা করছেন। পর্দা দিয়ে ঢেকে রাখছেন তাদের প্রতিষ্ঠান। তবে বাজার মনিটরিং কমিটির সভার সিদ্ধান্ত মানছেন না সৈয়দপুরের মাংস ব্যবসায়ীরা। তারা প্রশাসনের বেঁধে দেওয়া প্রতি কেজি গরুর মাংস ৪৮০ টাকা কেজি দর না মেনে ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন। সোম ও মঙ্গলবার বাজার ঘুরে এমন চিত্র পাওয়া গেছে। প্রশাসনের সিদ্ধান্ত না মানা প্রসঙ্গে ব্যবসায়ীরা জানান, গরুর দাম বেশি, তাই বেশি দামে মাংস বিক্রি করা হচ্ছে।
মাংস ব্যবসায়ী নেতা নাদিম আহমেদ ছোটু জানান, দু’চারজন মাংস বিক্রেতা প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মানছেন না। বাজার মনিটরিং কমিটির সিদ্ধান্ত মানা উচিত। কিন্তু তারা এসব না মেনে ৫০০ টাকা কেজি দরে মাংস বিক্রি করায় অন্য ব্যবসায়ীরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন।
বাজার মনিটরিং কমিটির সদস্য ও নীলফামারী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আফতাব আলম জোবায়ের জানান, রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং কেউ যাতে অহেতুক দাম বৃদ্ধি না করে, সেজন্য তাদের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। এ বিষয়ে কারও কোনো অভিযোগ থাকলে তা কমিটি সদস্যদের জানানোর জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।
সৈয়দপুর থানার ওসি শাহজাহান পাশা জানান, রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ মানুষ যাতে নির্বিঘেœ পণ্য কেনাবেচা ও নিরাপদে চলাচল করতে পারে, সেজন্য পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েনসহ টহল জোরদার করা হয়েছে।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও বাজার মনিটরিং কমিটির আহ্বায়ক পরিমল কুমার সরকার জানান, মনিটরিং কমিটির তৎপরতা শুরু হয়েছে। গোটা রমজান মাস পর্যন্ত চলবে তাদের কার্যক্রম। এক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা লক্ষ করা গেলে প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গরুর মাংসের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ..