কোম্পানি সংবাদ

রেনাটা ও প্রাইম ফাইন্যান্সের ঋণমান নির্ণয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: রেনাটা লিমিটেড ও প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ঋণমান অবস্থান (ক্রেডিট রেটিং) নির্ণয় করেছে ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (ক্রিসেল)। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
রেনাটা লিমিটেড: কোম্পানিটি দীর্ঘ মেয়াদে রেটিং পেয়েছে ‘এএ প্লাস’ আর স্বল্প মেয়াদে পেয়েছে ‘এসটি-১’। ৩০ জুন ২০১৮ পর্যন্ত নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও সর্বশেষ ৩১ মার্চ ২০১৯ পর্যন্ত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক তথ্যের আলোকে এ রেটিং দিয়েছে ক্রিসেল।
এদিকে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৭৬ শতাংশ বা আট টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ এক হাজার ১৭২ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল এক হাজার ১৭০ টাকা। ওই দিন কোম্পানিটির ৪১ লাখ ৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে তিন হাজার ৫১৪টি শেয়ার মোট ১২৬ বার হাতবদল হয়। ওই দিন শেয়ারদর সর্বনিন্ম এক হাজার ১৬৬ টাকা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ১৭৩ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর এক হাজার ৯০ থেকে এক হাজার ৩১৮ টাকায় ওঠানামা করে।
ওষুধ ও রসায়ন খাতের ‘এ’ ক্যাটেগরির এ কোম্পানি ১৯৭৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৮০ কোটি ৫৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা।
কোম্পানিটির মোট আট কোটি পাঁচ লাখ ৩৫ হাজার ৬৭৫টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৫১ দশমিক ১৬ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১৯ দশমিক ৩২ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়াগকারীদের কাছে ২২ দশমিক ৩৬ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে সাত দশমিক ১৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।
প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড: কোম্পানিটি দীর্ঘ মেয়াদে রেটিং পেয়েছে ‘এ প্লাস’ আর স্বল্প মেয়াদে পেয়েছে ‘এসটি-৩’। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্যের আলোকে এ রেটিং দিয়েছে ক্রিসেল।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর তিন দশমিক ৬৪ শতাংশ বা ৪০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ১০ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১০ টাকা ৭০ পয়সা। দিনজুড়ে তিন লাখ ১৮ হাজার ৪৫৬টি শেয়ার ৮৯ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩৪ লাখ ৩২ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিন্ম ১০ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১১ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর আট টাকা ৩০ পয়সা থেকে ১১ টাকা ৪০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।
৩০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৭২ কোটি ৯১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট ২৭ কোটি ২৯ লাখ ১৬ হাজার ৪৮৩টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৬৬ দশমিক ৬১ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর আট দশমিক ৬৬ শতাংশ, বিদেশি শূন্য দশমিক ১৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ২৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ শেয়ার।

সর্বশেষ..