শরীফুর রহমান আদিল ফেনীর শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ এ ফেনীর শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন ফেনী সাউথ-ইস্ট ডিগ্রি কলেজের দর্শন বিভাগের প্রভাষক মো. শরীফুর রহমান আদিল।
জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায়। এ সময় ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বি.কম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা ও পাঁচ উপজেলার শিক্ষা অফিসার সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
শিক্ষাগত যোগ্যতা, সৃজনশীলতা, শিক্ষা ক্ষেত্রে আইসিটির ব্যবহার, চারিত্রিক মাধুর্যতা, সহকর্মী, অভিভাবক ও ছাত্রছাত্রীদের প্রতি সহযোগিতা, প্রকাশনা প্রভৃতিবিষয়কে বিবেচনা করে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।
শরীফুর রহমানে এ অর্জনে আনন্দিত কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ শুভাকাক্সক্ষীরা। শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে নিয়ে মাত্র ৩ বছরে শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দীন হাজারীসহ বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠন, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি, সুজনসহ বিভিন্ন সামাজিক সংস্থা।
কলেজের অধ্যক্ষ পরমেশ চন্দ্র দাস বলেন, আদিল আমার এ কলেজের সম্পদ। অসাধারণ প্রতিভাবান এ শিক্ষক ভবিষ্যতে সর্বক্ষেত্রে সফলতার ছাপ রাখবেন। তিনি আরও বলেন, জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ হওয়ার যোগ্যতা রাখেন আমাদের এ শিক্ষক। কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক আবুল কালাম বলেন, এ পুরস্কার তার কাজকে আরও গতিশীল করবে। একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী পূর্ণিমা রানী নাথ বলেন, স্যারের পড়ানোর কৌশল একবারে অনন্য। যুক্তিবিদ্যা বিষয়ের তার সেøাগান হলো ‘শুধু পাঁচ মিনিট’!
শরীফুর রহমান আদিল ২০১৩ সালের শেষদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিভাগ থেকে অনার্স মাস্টার্সে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। ২০১৫ সালের জুনে ফেনী
সাউথ-ইস্ট ডিগ্রি কলেজে যোগ দেন। আইন বিষয়ে তার স্নাতক ডিগ্রি রয়েছে। বর্তমানে তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয়ে মিডিয়া ও নৈতিক দায়: বাংলাদেশ প্রসঙ্গ শিরোনামে এমফিল করার অনুমোদন পেয়েছেন। এছাড়া নৈতিকতা, শিক্ষা, সমসাময়িক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিশ্লেষণমূলক তার দেড় শতাধিক নিবন্ধ প্রকাশ হয়েছে। শিক্ষকতার পাশাপাশি বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে জড়িত আছেন। তিনি নৈতিকতা বিষয়ে প্রবৃদ্ধি অর্জনে কাজ করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় নৈতিকতাবিষয়ক একটি ওয়েব পোর্টাল পরিচালনা করেন। ভবিষ্যতে তিনি যুবসমাজকে নৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন ও অসহায় বৃদ্ধদের সেবা করার জন্য মা আশ্রমকেন্দ্র খোলার ইচ্ছা পোষণ করেন।