শিরোপার স্বপ্নে সাফ মিশনে নামছে মেয়েরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বয়সভিত্তিক ফুটবলে গত কয়েক বছর সাফল্যের সঙ্গেই পথ চলছে বাংলাদেশের মেয়েরা। যা এবারের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা ঘরে তুলতে স্বপ্ন দেখাচ্ছে লাল-সবুজদের। সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে আজ ‘দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ’খ্যাত এ টুর্নামেন্টে নামছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।
পঞ্চম সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের বল মাঠে গড়িয়েছে গত পরশু। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবলের মিশন শুরু হচ্ছে আজ দুপুর ৩.১৫ মিনিটে। সে সময় নেপালের বিরাটনগরে ভুটানের বিপক্ষে খেলবে সাবিনা খাতুনের দল। এরই মধ্যে জয়ের ছক তৈরি করেছেন তারা।
দেশ ছাড়ার আগে বাংলাদেশ কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেছিলেন, এবার তার শিষ্যদের প্রাথমিক লক্ষ্য সেমিফাইনাল। এরপরই ফাইনালে চোখ রাখতে চান সাবিনারা, ‘আমাদের প্রথম লক্ষ্য ভালোভাবে গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে সেমিফাইনালে ওঠা। যদিও আমরা গতবারের রানার্সআপ, তবুও আমরা সেমির পর ফাইনাল নিয়ে ভাবব। গতবার এ দলটি নিয়ে কিন্তু আমাদের কোনো প্রত্যাশা ছিল না। আমরা কোনো লক্ষ্য নিয়ে যাইনি; কিন্তু আমরা ফাইনালে উঠেছিলাম।’
বাংলাদেশের মেয়েরা গত সোম ও মঙ্গলবার স্থানীয় জুট মিলস মাঠে ও গতকাল সকালে মূল ভেন্যুতে অনুশীলন করে। মাঠে বসে গত পরশু গ্রুপ প্রতিপক্ষ নেপাল ও ভুটানের ম্যাচও দেখেছে মেয়েরা। এরপরই আজকের ম্যাচের পরিকল্পনা করতে বসেন তারা।
পঞ্চম সাফের প্রথম ম্যাচে নেপালের কাছে ৩-০ গোলে হারে ভুটান। তাই আজ বাড়তি আত্মবিশ্বাস পাচ্ছে বাংলাদেশ। তবে তাতে মোটেও ভেসে যেতে চাইছেন না সাবিনা খাতুনরা। এ ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক সাবিনা খাতুন বলেন, ‘নেপালের আবহাওয়া ও খাবারের সঙ্গে এরই মধ্যে আমরা মানিয়ে নিয়েছি। এখন আমাদের মনোযোগ প্রথম ম্যাচ ঘিরে। আশা করি দলের সবার মনোবল ও আত্মবিশ্বাস খুবই উঁচুমাত্রায় আছে। এ আসরে আমরা সবাই ভালো ফল করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’
এবারের সাফে ‘এ’ গ্রুপে খেলছে বাংলাদেশ। যেখানে লাল-সবুজদের প্রতিপক্ষ ভুটান ও স্বাগতিক নেপাল। এদিকে গত চার আসরের চ্যাম্পিয়ন ভারত ‘বি’ গ্রুপে খেলবে শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের সঙ্গে।
আগের চার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আসরে বাংলাদেশ কখনই চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। প্রথম আসরে (২০১০ সালে কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত) বাংলাদেশ বিদায় নেয় সেমিফাইনাল থেকে। এরপর ২০১২ সালের শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় আসরে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয় লাল-সবুজরা। এদিকে ২০১৪ সালে পাকিস্তানের ইসলামাবাদে অনুষ্ঠিত তৃতীয় আসরে আবারও সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। ২০১৬ সালে ভারতের শিলিগুড়িতে অনুষ্ঠিত চতুুর্থ ও সর্বশেষ আসরে আরেকটু ভালো করে বাংলাদেশ। কিন্তু ফাইনালে হেরে রানার্সআপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যদের।
বাংলাদেশ দল
মাহমুদা আক্তার, রুপনা চাকমা, ইয়াসমিন আক্তার, মাসুরা পারভীন, আঁখি খাতুন, নার্গিস খাতুন, নিলুফা ইয়াসমিন নীলা, শামসুন্নাহার (সিনিয়র), শিউলি আজিম, মিশরাত জাহান মৌসুমী, মারিয়া মাণ্ডা, মনিকা চাকমা, ইশরাত জাহান রত্না, সানজিদা আক্তার, মার্জিয়া, সিরাত জাহান স্বপ্না, সাবিনা খাতুন, কৃষ্ণা রানী সরকার, রাজিয়া খাতুন ও তহুরা খাতুন।