শিশুদের মানসিক সমস্যা বাড়াচ্ছে সামাজিক মাধ্যম

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক: সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে শিশু-কিশোরদের মানসিক সমস্যা হওয়ার সম্পর্ক খুঁজে পেয়েছেন চিকিৎসক ও শিশু বিশেষজ্ঞরা। এর নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তারা। খবর বিবিসি।

সম্প্রতি একদল মার্কিন শিশুকল্যাণ বিশেষজ্ঞ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের কাছে একটি চিঠি লেখেন। এতে তারা ‘মেসেঞ্জার কিডস’ নামে বাচ্চাদের মেসেজিং অ্যাপটি বন্ধ করে দেওয়ার আহ্বান জানান।

তারা বলেন, ১৩ বছরের কম বয়সীদের এই প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করতে উৎসাহিত করাটা দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ। তারা তথ্যপ্রমাণ পেয়েছেন, সামাজিক মাধ্যমের কারণে কিশোর-কিশোরীদের মানসিকতায় অস্বাভাবিক সব পরিবর্তন হচ্ছে। ফেসবুক অধিকৃত ইনস্টাগ্রামের মতো অন্যান্য সাইটে পোস্ট করা ছবি দেখে ১০ বছরের মেয়েও তার দৈহিক বৈশিষ্ট্য নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগছে।

ডা. রঙ্গন চ্যাটার্জী শিশু-কিশোরদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার নিয়ে তার উদ্বেগ তুলে ধরেছেন। তিনি বলেছেন, তিনি একবার ১৬ বছরের একটি কিশোরকে রোগী হিসেবে পেয়েছিলেন, নিজের হাত-পা কাটার পর যাকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে পাঠানো হয়েছিল।

কিন্তু ডাক্তার রঙ্গন চ্যাটার্জী বিষণœতারোধী ওষুধ না দিয়ে ছেলেটিকে একটা সহজ সমাধান দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, তাকে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করা কমিয়ে আনতে হবে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক ঘণ্টার বেশি নয়। তবে কয়েক সপ্তাহ পর এ সময় বাড়ানো যেতে পারে। ছয় মাস পর তার অবস্থা লক্ষণীয়ভাবে ভালো হতে শুরু করল।