কোম্পানি সংবাদ

শেয়ার বেচবেন দুই কোম্পানির উদ্যোক্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্যাংক খাতের কোম্পানি এক্সপোর্ট ইমপোর্ট (এক্সিম) ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের উদ্যোক্তা শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দিয়েছেন। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এক্সপোর্ট ইমপোর্ট (এক্সিম) ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড: উদ্যোক্তা মাজাকাত হারুন কোম্পানিটির ধারণ করা মোট এক কোটি ৮৫ লাখ ৯৬ হাজার ১১৬টি শেয়ার থেকে ২৫ লাখ শেয়ার বিক্রি করবেন। আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বর্তমান বাজারদরে সাধারণ মার্কেটে উল্লিখিত পরিমাণ শেয়ার বিক্রি করবেন।
এদিকে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ১১ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ১১ টাকা ৬০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির দুই কোটি ২১ লাখ ৩৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে ১৯ লাখ ১৭ হাজার ১১৩টি শেয়ার মোট ৩০৬ বার হাতবদল হয়। ওইদিন শেয়ারদর সর্বনিন্ম ১১ টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১১ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর ৯ টাকা থেকে ১৪ টাকা ২০ পয়সায় ওঠানামা করে। ব্যাংক খাতের এ কোম্পানিটি সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করে এক টাকা ৬৫ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৯ টাকা ৯৮ পয়সা।
মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড: উদ্যোক্তা ইয়াসমিন হক কোম্পানিটির ধারণ করা মোট ২৪ লাখ ৯৭ হাজার ৫৫১টি শেয়ার থেকে ৩৬ হাজার শেয়ার বিক্রি করবেন। আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বর্তমান বাজারদরে সাধারণ মার্কেটে উল্লিখিত পরিমাণ শেয়ার বিক্রি করবেন।
২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১১ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ৩০ জুন সকাল ১০টায় ঢাকা ক্যান্টনমেন্টে অবস্থিত গলফ গার্ডেনে (আর্মি গলফ ক্লাব) বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। ওই সময় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয় তিন টাকা তিন পয়সা এবং ৩১ ডিসম্বেরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়ায় ২৩ টাকা ১৬ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে তিন টাকা ৪৫ পয়সা ও ২০ টাকা ৫১ পয়সা।
এদিকে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৯৩ শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৩২ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৩২ টাকা ৬০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির ৫২ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে এক লাখ ৬১ হাজার ৩৮৯টি শেয়ার মোট ১৩২ বার হাতবদল হয়। ওইদিন শেয়ারদর সর্বনিন্ম ৩২ টাকা ১০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৩২ টাকা ৭০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর ২৮ টাকা থেকে ৪০ টাকা ৫০ পয়সায় ওঠানামা করে।

সর্বশেষ..