কোম্পানি সংবাদ

সপ্তাহজুড়ে পতন উভয় বাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক: উভয় পুঁজিবাজারে গত সপ্তাহজুড়ে টানা পতন চলেছে। গতকাল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৬২ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। লেনদেন প্রায় ৫৮ কোটি টাকা কমে ৩০০ কোটি টাকার ঘরে নেমে আসে। ডিএসইর প্রধান সূচক কমেছে আট পয়েন্ট। পতনের ধাক্কায় দিশাহারা হয়ে পড়েছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। চলতি সপ্তাহে টানা পাঁচ কার্যদিবসে সূচক কমেছে ১৫৮ পয়েন্ট। গতকাল ডিএসইতে লেনদেনের শুরুতে সূচক ওঠানামা করে আগের দিনের চেয়ে ২০ পয়েন্ট উঠে যায়। তবে তা বেশি সময় স্থায়ী হয়নি। এরপর বিক্রির চাপে সূচকে পতন নেমে আসে। বেলা পৌনে ২টার পর থেকে কেনার চাপ বাড়লেও শেষ পর্যন্ত সূচক ইতিবাচক হতে পারেনি। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র লক্ষ করা গেছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আট দশমিক ৩২ পয়েন্ট বা দশমিক ১৫ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ২২২ দশমিক ৩০ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক তিন দশমিক ৬৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৩০ শতাংশ কমে এক হাজার ১৯৪ দশমিক ৬০ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক তিন দশমিক ১৯ পয়েন্ট বা দশমিক ১৭ শতাংশ কমে এক হাজার ৮৫৭ দশমিক ৭১ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৬ হাজার ৬১৪ কোটি ৪৯ লাখ ৩৭ হাজার ৯৭৯ টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৩৮৬ কোটি ৬১ লাখ ৪৪ হাজার ৯৩৭ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪০৮ কোটি ৮৮ লাখ ১৯ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৫৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা। এদিন ১৩ কোটি ৬৩ লাখ ৬৫ হাজার ১৫৬টি শেয়ার এক লাখ সাত হাজার ৬৬২ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৩ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০৮টির, কমেছে ২১৯টির ও অপরিবর্তিত ছিল ২৬টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটির ১৮ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২০ টাকা ৪০ পয়সা। ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের ১০ কোটি ৬৪ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে এক টাকা ৪০ পয়সা। তৃতীয় অবস্থানে থাকা গ্রামীণফোনের আট কোটি ৮০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে দুই টাকা ৯০ পয়সা। রূপালী ইন্স্যুরেন্সের সাত কোটি ৭২ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ৭০ পয়সা। মুন্নু সিরামিকের সাত কোটি ৪৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৬ টাকা। এর পরের অবস্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের সাড়ে ছয় কোটি টাকা, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ডের সোয়া ছয় কোটি টাকা, রানার অটোর সোয়া ছয় কোটি টাকা, সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজের সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা ও ন্যাশনাল টিউবসের পৌনে পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হয়।
১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে এসইএমএলএফবিএসএল গ্রোথ ফান্ড। এসইএমএল লেকচার ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের দর ৯ দশমিক ৭৫ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকের ৯ দশমিক ৩৪ শতাংশ, ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের ৯ দশমিক ২১ শতাংশ, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ৯ শতাংশ, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের সাড়ে সাত শতাংশ, এসইএমএল আইবিবিএল শরিয়াহ্ ফান্ডের ছয় দশমিক ৯৭ শতাংশ, ইবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ছয় দশমিক ৬৬ শতাংশ, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ শতাংশ ও প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের দর চার দশমিক আট শতাংশ বেড়েছে।
অন্যদিকে ১০ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে ইউনাইটেড এয়ার। জুট স্পিনার্সের দর ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ কমেছে। এছাড়া বেক্সিমকো সিনথেটিকসের দর ৯ দশমিক ৪৩ শতাংশ, শাশা ডেনিমসের ৯ দশমিক ৩৮ শতাংশ, শ্যামপুর সুগার মিলের ৯ দশমিক ৩১ শতাংশ, পিপলস লিজিংয়ের ৯ শতাংশ, তুংহাই নিটিংয়ের আট দশমিক ৮২ শতাংশ, বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানির আট দশমিক ৩৩ শতাংশ, মেঘনা পিইটির আট শতাংশ ও সাভার রিফ্র্যাক্টরিজের দর সাত দশমিক ৯৬ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ২৯ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৩০ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৬৯৮ দশমিক শূন্য এক পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫৭ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৫ শতাংশ কমে ১৫ হাজার ৯৭২ দশমিক ৯০ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৬৩ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৪টির, কমেছে ১৭৫টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৪টির দর।
সিএসইতে এদিন ১২ কোটি ২১ লাখ ১৭ হাজার ৭২৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৮ কোটি ৭৮ লাখ ৭৩ হাজার ১৪৮ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ছয় কোটি ৫৭ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে রানার অটো। কোম্পানিটির ৬৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর বেক্সিমকোর সাড়ে ৫৩ লাখ টাকার, ডরিন পাওয়ারের সাড়ে ৪৯ লাখ টাকার, বসুন্ধরা পেপার মিলসের ৪৮ লাখ টাকার, ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের ৪৩ লাখ টাকার, গ্রামীণফোনের ৩৭ লাখ টাকার, মুন্নু সিরামিকের ৩১ লাখ টাকার, সিলকো ফার্মার সাড়ে ২৮ লাখ টাকার, এশিয়ান টাইগার্সের ও বিবিএস কেব্লসের সাড়ে ২৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..