সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড

প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু ১৯৯১ সালে। তখন তিনজন স্বপদ্রষ্টা চ্যালেঞ্জ নিয়ে ব্যবসার বৃহৎ ক্ষেত্রে নামেন। শুরুটা গন্তব্যহীন ছিল কিছুটা। তবে শ্রম, সাধনা ও প্রজ্ঞার কারণে সে ব্যবসায় সফল হন তারা। প্রতিষ্ঠা করেন দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড।
পথটি মসৃণ ছিল না তাদের। শুরুটা ভীষণ চ্যালেঞ্জের ছিল। তবে উদ্যোক্তাদের কর্মদক্ষতা ও অধ্যবসায়ের কারণে স্বল্পসময়ের মধ্যে মানুষের আস্থা অর্জন করে প্রতিষ্ঠানটি। গুণগত মান ও স্বকীয়তার ওপর ভর করে টিকে আছে। দীর্ঘদিন ধরে তারা দেশের প্রধানতম চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের প্রবৃদ্ধি বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ অতীতকে ছাড়িয়ে যেতে চায়। অতীতের তুলনায় আরও বেশি কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করতে চায়।
বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রকৌশল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান এই সাইফ পাওয়ারটেক। ২০০৩ সালে প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিতে পরিণত হয় এটি। এর আগে সাইফ পাওয়ারটেক করপোরেশন নামে পরিচিত ছিল প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে চট্টগ্রাম পোর্ট অথরিটি (সিপিএ), পানগাঁও আইসিডি ও কমলাপুর আইসিডির (কেআইসিডি) উন্নয়নে কাজ করছে তারা। ২০০৪ সালে চট্টগ্রাম বন্দরের রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শুরু করে। ব্যবসা সম্প্রারণে বিভিন্ন ধরনের পরিকল্পনা অব্যাহত রেখেছে তারা। বর্তমানে রিনিউঅ্যাবল এনার্জি, প্লাস্টিক ও পলিমারভিত্তিক প্লান্ট নিয়ে কাজ করছে। বছরে প্রায় এক দশমিক দুই মিলিয়ন অটোমেটিভ ব্যাটারি (এন৫০) উৎপাদন করে তারা। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বিভিন্ন বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান যেমন ডোসান ইনফ্রাকোর কো. লিমিটেড (ডাউয়ি হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড), মিৎসুবিশি হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ববকক বরসিগ
পাওয়ার সার্ভিস জিএমবিএইচ, অ্যামেক ফোস্টার হুইলার, কারমানা টেকনোলজিস প্রভৃতি পণ্য দেশে সরবরাহ করে থাকে সাইফ পাওয়ারটেক।
বাজার মনিটরিং ও গবেষণার কারণে অন্যদের তুলনায় এগিয়ে আছে, একই সঙ্গে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও দক্ষ জনশক্তি ব্যবহার করে উৎপাদিত পণ্যের গুণগত মান ধরে রাখছে সাইফ পাওয়ারটেক। পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা পরিষদের কার্যকরী দিকনির্দেশনা ও সিদ্ধান্ত এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে। সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন তরফদার নিগার সুলতানা। ব্যবস্থাপনা টিমের নেতৃত্বে রয়েছেন তরফদার মো. রুহুল আমিন। তিনি চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলেন বলেই ২০০৭ সালে জাহাজের টার্ন অ্যারাউন্ড টাইম তিন দিনে আনতে পেরেছিলেন। তার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল এই প্রতিষ্ঠানটি। তবে কৃতিত্বের দায়ভার শুধু নিজেকে দিতে নারাজ তিনি। তিনি মনে করেন, সফলতার পেছনে প্রতিষ্ঠানসংশ্লিষ্ট সবার সমান ভূমিকা রয়েছে। সবার নিরলস পরিশ্রমেই আজ এ অবস্থায় আসা সম্ভব হয়েছে এমনই দাবি তার। তাই প্রতিষ্ঠানটিকে সফল করার জন্য তিনি কৃতজ্ঞ সহযোগী ও সহকর্মীদের প্রতি। পরিচালনা পরিষদে রয়েছেন রুবাইয়া চৌধুরী, তরফদার মো. রুহুল সাইফ ও মো. জালাল উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। কোম্পানি সেক্রেটারির দায়িত্বে রয়েছেন এফএম সালেহীন।

পণ্য

ব্যাটারি

জেনারেটর

এক্সাভেটর

হুইল লোডার

ফর্কলিফট

সৌরপণ্য

আইপিএস/ইউপিএস/ভিএস
গার্মেন্ট, স্টিল কারখানা, টেক্সটাইল মিল, পেপার অ্যান্ড প্যাকেজিং, সিমেন্ট কারখানা, রিয়েল স্টেট, ব্যাংক, ফার্মাসিউটিক্যালস, সিরামিক শিল্প প্রভৃতি খাতের উন্নয়নে সেবা দিয়ে আসছে সাইফ পাওয়ারটেক। সততা, প্রচেষ্টা, সৃজনশীলতা, জ্ঞান, গুণমান, জবাবদিহিতা ও পেশাদারিত্বের সমন্বয় রয়েছে সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডে। গুণগত মানে সেরা কাজের মাধ্যমে দেশকে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত করে তুলতে চায় প্রতিষ্ঠানটি। এ লক্ষ্য অর্জনে নিরলস কাজ করে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি। গ্রাহকের সন্তুষ্টি তাদের প্রধানতম উদ্দেশ্য। সঠিক সময়ে সঠিক সেবাদানে তারা সদা তৎপর। বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে এখানে। সপ্তাহের সাত দিনই দিন ও রাতের যে কোনো সময়ে তাদের সেবা পেয়ে থাকেন গ্রাহক। সর্বাধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করে চলেছে তারা। এভাবে দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখছে সাইফ পাওয়ারটেক। জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জনে কাজ করে চলেছে। দেশ ও দশের উন্নয়নে অবদান রাখছে।
সুদক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মীদের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে সাইফ পাওয়ারটেকের জনবল। এর অনন্যবৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এখানে শ্রমিকদের শ্রদ্ধার পাত্র হিসেবে গণ্য করা হয়। তাদের ভালো-মন্দ দেখভাল করা হয়। বেশ কয়েকজন ইঞ্জিনিয়ার রয়েছেন এখানে। কর্মীদের উন্নয়নে বিভিন্ন সময় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। পরিবেশবান্ধব প্রতিষ্ঠান গড়ার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কর্মস্থলে দুর্ঘটনা এড়াতে বিশ্বমানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এখানে আরামপ্রদ ও নিরাপদ কর্মক্ষেত্র নিশ্চিত করা হয়েছে।

কনসার্ন

ই-ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড

ম্যাক্সন পাওয়ার লিমিটেড

সাইফ প্লাস্টিক পলিমার লিমিটেড

ব্ল– লাইন কমিউনিকেশন

সাইফ গ্লোবাল স্পোর্টস লিমিটেড

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড

সাইফ মেরিটাইম লিমিটেড

সাইফ ইলেকট্রিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড

বাংলাদেশ ডিস্ট্রিকট অ্যান্ড ডিভিশনাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন

‘যাত্রা এখনও শেষ হয়নি। আমাদের আরও অনেক দূর যেতে হবে। সবার সম্মিলিত প্রয়াসে আমরা টিকে থাকতে চাই’

তরফদার মো. রুহুল আমিন
ব্যবস্থাপনা পরিচালক

রতন কুমার দাস