সাপ্তাহিক লেনদেনের ৪.৩১% ইফাদ অটোসের

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিদায়ী সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোট লেনদেনের চার দশমিক ৩১ শতাংশ ছিল ইফাদ অটোস লিমিটেডের। গত সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির মোট ৯৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে মোট ৭২ লাখ ছয় হাজার ৬৭৬টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে, যার বাজারদর ৯৬ কোটি ৯ লাখ ৮৩ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের চার দশমিক ৩১ শতাংশ। শেয়ারদর আগের সপ্তাহের চেয়ে তিন দশমিক শূন্য আট শতাংশ বেড়েছে।

সর্বশেষ কার্যদিবসে শেয়ারদর দশমিক ৩৭ শতাংশ বা ৫০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার ১৩৪ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১৩৪ টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১৩৩ টাকা ৭০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৩৫ টাকা ৭০ পয়সায় হাতবদল হয়। ওইদিন ১৪ লাখ ৮২ হাজার ৭০৪টি শেয়ার মোট এক হাজার ৭২৭ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৯ কোটি ৯১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। গত এক বছরে শেয়ারদর ১১৩ টাকা ১০ পয়সা থেকে ১৬৫ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়।

২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি ২১ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ছয় টাকা ৭৪ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩৮ টাকা ৬১ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ১০৪ কোটি ৭৮ লাখ ১০ হাজার টাকা।

চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৪২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৯৯ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় ইপিএস বেড়েছে এক টাকা ৪১ পয়সা। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এনএভি হয়েছে ৪১ টাকা সাত পয়সা, যা একই বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত ছিল ৩৮ টাকা ৬১ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ৩৭ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

কোম্পানিটি ২০১৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করেছে। ২০১৬ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১৩ শতাংশ নগদ ও চার শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে তিন টাকা ৯৮ পয়সা এবং এনএভি ৩৩ টাকা ৫৮ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ৫৯ কোটি ৫১ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

৩০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২২৫ কোটি ৪৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৩৯৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য-আয় অনুপাত ১৯ দশমিক ৮৮ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ১৩ দশমিক ৮৪। কোম্পানিটির ২২ কোটি ৫৪ লাখ ৪৬ হাজার শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৬২ দশমিক ৭৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১৬ দশমিক ৯৬ শতাংশ, বিদেশি তিন দশমিক ৪৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ১৬ দশমিক ৮২ শতাংশ শেয়ার।