সাফের সেমিফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বয়সভিত্তিক নারী ফুটবলে গত কয়েক বছর দারুণ খেলছে বাংলাদেশ। সে ধারাবাহিকতায় গতকাল পঞ্চম সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পথচলাটা দারুণ হয়েছে লাল-সবুজ জাতীয় নারী ফুটবল দলের। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ভুটানের বিপক্ষে কাক্সিক্ষত জালের দেখা পেয়ে যায় গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। শেষদিকে দারুণ এক গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে সাবিনা খাতুন জয় এনে দেন। আর তাতে এ টুর্নামেন্টের সেমি-ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের।
নেপালের বিরাটনগরের শহীদ রঙ্গসালা স্টেডিয়ামে গতকাল গ্রুপ ‘এ’-র ম্যাচে ভুটানকে ২-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ। এর আগে নেপালের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৩-০ গোলে হারায় ভুটান পঞ্চম সাফের আসর থেকে বিদায় নেয়। আগামীকাল গ্রুপের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে নেপালের মুখোমুখি হবে লাল-সবুজের মেয়েরা।
গতকাল শুরু থেকেই বলের দখল নিয়েছিল সাবিনারা। সে সুবাদে ১১তম মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ কিন্তু সে সময় দারুণ সুযোগ নষ্ট করেন সিরাত জাহান স্বপ্না। এরপর ৩০তম মিনিটে সাবিনা খাতুনের দূরপাল্লার শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়ে যায়। ছয় মিনিট পর গোলরক্ষক বরাবর শট নিয়ে হতাশা বাড়ান তিনি। ৪১তম মিনিটে মিশরাত জাহান মৌসুমী জালে অবশ্য বল জড়িয়েছিলেন। কিন্তু তার আগেই তিনি পড়েন অফসাইডের ফাঁদে।
প্রথমার্ধে না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পেয়ে যায় বাংলাদেশ। মনিকা চাকমার কর্নারে ডি-বক্সে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড় হেড করার পর জটলার মধ্য থেকে জাল খুঁজে নেন মৌসুমী। এরপর সমতায় ফেরার চেষ্টায় দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করে ভুটান। সতীর্থের কর্নারে ইডোন দর্জির শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। এরপর আরও আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে বাংলাদেশের মেয়েরা। তার সুফল হিসেবে ম্যাচের শেষদিকে সাবিনার একক প্রচেষ্টার গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেয় বাংলাদেশ। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে উঠে একাধিক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি। এদিকে যোগ করা সময়ে শিউলি আজিমের বাড়ানো বলে তহুরার নেওয়া শট দূরের পোস্ট ঘেঁষে না বেরিয়ে গেলে আরও বড় জয় নিয়েই সেমিতে পা রাখাতে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।
এর আগে ভুটানের সঙ্গে সাফে বাংলাদেশের দেখা হয়েছিল দুইবার। প্রথমবার ২০১০ কক্সবাজার সাফে ভুটানকে ৯-০ গোলে হারিয়েছিল লাল-সবুজের মেয়েরা। এরপর ২০১২ কলম্বো সাফেও প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ১-০ গোলে জিতেছিল গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। সাত বছর পর আবারও সাফে সেই চিত্রই গতকাল দেখালেন সাবিনা-মার্জিয়ারা।