সারা বাংলা

সামিটের জাহাজ থেকে জাহাজে এলএনজি স্থানান্তর সম্পন্ন

‘সামিট এলএনজি’ ফ্ল্যাক্সিবল হোজ ব্যবহারের মাধ্যমে ট্যাংকার থেকে এক লাখ ৫৯ হাজার ঘনমিটার এলএনজি গ্রহণ করে এবং পুনরায় গ্যাসে রূপান্তর করে সমুদ্র তলদেশের পাইপলাইনের মাধ্যমে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করছে। গত শুক্রবার সামিট এলএনজি বঙ্গোপসাগরের মহেশখালীর উপকূল থেকে ছয় কিমি দূরে জাহাজ থেকে জাহাজে (এসটিএস) এলএনজি স্থানান্তর প্রক্রিয়া সফলভাবে সম্পন্ন করে।
সামিটের এফএসআরইউ ওমান ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল থেকে এক লাখ ৫৯ হাজার ঘনমিটার এলএনজি গ্রহণ করে। এলএনজি বহনকারী জাহাজ ‘ক্রিয়োল স্পিরিট’ আল জেরিয়ার বেথেইউয়া থেকে এ এলএনজি বহন করে নিয়ে এসেছে। পেট্রোবাংলার পক্ষ থেকে রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (আরপিজিসিএল) সফলভাবে এ স্থানান্তরের প্রত্যয়ন করে। পরবর্তী এসটিএস স্থানান্তর এ বছর জুনের প্রথম দিকে নির্ধারণ করা হয়েছে।
এ মাইলফলক অর্জনে সামিট গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আজিজ খান বলেন, সামিটে আমরা নির্ধারিত সময়ে বিদ্যুৎ প্রকল্প, এলএনজি প্রকল্প সম্পন্ন করে বাংলাদেশের সক্ষমতার প্রমাণের সুযোগের জন্য কৃতজ্ঞ। সামিটের প্রত্যেকটি প্রকল্প বাংলাদেশের প্রযুক্তিগত দক্ষতা ও বাস্তবায়নের সক্ষমতার প্রমাণ।
পেট্রোবাংলা ও আরপিজিসিএলের চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমিন বলেন, পেট্রোবাংলার পক্ষ থেকে আরপিজিএল কর্তৃক কমিশনকৃত সামিটের জাহাজ থেকে জাহাজে এলএনজি স্থানান্তর প্রক্রিয়া সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় আমরা গর্বিত। বিজ্ঞপ্তি

 

 

 

সর্বশেষ..