সা ত কা হ ন: সঞ্জিত কুমার রায়

তরুণরাই সব কাজের প্রাণ। তরুণদের নিয়ে কাজ করতে ভালো লাগে। তাই তিনি সব সময় তরুণদের পাশে থাকার চেষ্টা করেন। বিশ্বাস করেন, প্রজন্ম কথা বলে। তরুণ প্রজন্ম দেশের হাল ধরে, দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনে। কথাগুলো বলেছেন টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়। গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি তার নেওয়া উদ্যোগগুলো প্রশংসনীয় হয়ে উঠেছে সমাজের সব শ্রেণির মানুষের কাছে।
এলাকার তরুণদের নিয়ে তিনি দিনের পর দিন নানা ধরনের কাজ করে চলেছেন। পাশাপাশি টাঙ্গাইলে যোগদানের পর তিনি জেলার সব থানার নিয়মিত খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। সমস্যাগুলো চিহ্নিত করছেন। সমাধানের উপায়ও খুঁজে চলেছেন অহর্নিশ।
তরুণদের উন্নয়নের পাশাপাশি শহরের যানজট নিয়েও তিনি চিন্তিত। জেলার শ্রমিক ইউনিয়ন, বাস মালিক সমিতি, মেয়র, সাংবাদিক, পুলিশ প্রশাসনসহ নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে যানজট সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম হয়েছেন। মাদক নিয়ন্ত্রণ ও এ সমস্যার সমাধানেও তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। তরুণদের ক্যারিয়ার ও প্রজন্ম নিয়ে ভাবা এ মানুষটি মনে করেন, মাদক একটি জাতীয় সমস্যা। জীবনকে ধ্বংস করে দেয় এই মাদক। তাই তিনি সব সময় তরুণদের এসব বিষয়ে না জড়ানোর পরামর্শ দেন।
দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার পর জেলার মাদক ব্যবসায়ীদের একটি তালিকা তৈরি করেছেন। সেবনকারীদেরও তালিকা করেছেন। প্রশাসনসহ জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলেছেন। সভা, মিটিং করেছেন। জেলাকে মাদকমুক্ত করাই তার লক্ষ্য।
সাফল্যের গোলকধাঁধায় নিজেকে আটকে না রেখে প্রতিনিয়ত তার সাফল্যের গল্প প্রকাশ হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। ফলে এ মানুষটির সাফল্যের তিলক বর্ধিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। টাঙ্গাইলের নাগরিকরা তার কর্মকাণ্ডকে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখছেন।

বেনজীর আবরার