কোম্পানি সংবাদ

সিলকো ফার্মার তৃতীয় প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৭ পয়সা (আইপিও পূর্ববর্তী হিসাব) আর আইপিও পরবর্তী হিসাবে ৩২ পয়সা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
তথ্যমতে, কোম্পানিটির তৃতীয় প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৪৭ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৪৮ পয়সা (আইপিও পূর্ববর্তী হিসাব)। ওই সময় করপরবর্তী মুনাফা করেছে তিন কোটি চার লাখ ৯০ হাজার টাকা। যা তার আগের বছর একই সময় ছিল তিন কোটি ১০ লাখ পাঁচ হাজার টাকা। আইপিও পরবর্তীতে তৃতীয় প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৩২ পয়সা। আর আইপিও পূর্ববর্তী হিসেবে প্রথম তিন প্রান্তিক শেষে করপরবর্তী মুনাফা করেছে সাত কোটি ৮৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল সাত কোটি ৮৩ লাখ টাকা। আলোচিত সময়ে ইপিএস দাঁড়িয়েছে এক টাকা ২২ পয়সা। আইপিও পরবর্তীতে ৯ মাসে ইপিএস হয়েছে ৮৩ পয়সা। আইপিও পূর্ববর্তী হিসাবে ৩১ মার্চ এনএভি দাঁড়িয়েছে ২৮ টাকা ২৭ পয়সা। যা আইপিও পরবর্তীতে ২২ টাকা ৪৬ পয়সা। এদিকে, আজ থেকে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার লেনদেন শুরু হচ্ছে। উল্লেখ্য, এন ক্যাটেগরিতে লেনদেন শুরু করা সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ট্রেডিং কোড হল-‘ঝওখঈঙচঐখ’। ডিএসইতে কোম্পানির কোড-১৮৪৯৫ আর সিএসইতে কোম্পানি কোড- ১৩০৩৫।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে তিন কোটি শেয়ার ছেড়ে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নেওয়া হয়েছে ১০ টাকা। কারখানা ভবন নির্মাণ, যন্ত্রপাতি ক্রয়, ডেলিভারি ভ্যান ক্রয় ও আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করার জন্য কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে।
কোম্পানিটির ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২৫ দশমিক ৪১ টাকা। পাঁচটি আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে এক দশমিক ৪৬ টাকা। আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্সেস লিমিটেড, ইবিএল ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড এবং সিটিজেন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির আইপিওতে আবেদনকারীদের মধ্যে বরাদ্দ দেওয়া শেয়ার ৭ মে শেয়ারহোল্ডারদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাবে জমা হয়েছে। এর আগে ১০ এপ্রিল লটারির মাধ্যমে কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদনকারীদের মধ্যে শেয়ার বরাদ্দ দেওয়া হয়। এর আগে গত ১৯ ডিসেম্বর পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৬৯তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

সর্বশেষ..