সুচির নোবেল বাতিলে গণসই

মিয়ামনারের স্টেট কাউন্সিলর অং সাং সু চির নোবেল পুরস্কার কেড়ে নেয়ার দাবিতে শুরু হওয়া অনলাইন পিটিশনে এরইমধ্যে সই করেছেন প্রায় ৩ লাখ ৭৮ হাজার মানুষ। রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান সহিংসতায় সু চির নির্লিপ্ততা ও তার সরকারের রোহিঙ্গা বিদ্বেষের প্রেক্ষিতে এ অনলাইন পিটিশন শুরু হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল পৌনে ৯টা পর্যন্ত চেঞ্জ ডট ওআরজি নামে একটি সাইটে এসব মানুষ সই করেছেন।

৭ সেপ্টেম্বর থেকে অনলাইনে এ পিটিশনে সইয়ের মাধ্যমে শান্তিতে পাওয়া সু চির নোবেল বাতিল করতে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটির কাছে আহ্বান জানানো হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ৫ লাখ মানুষের সই সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত হয়, দুইদিন না যেতেই লক্ষ্যমাত্রার কাছাকাছি পৌঁছেছে সইকারীদের সংখ্যা।

এ পিটিশনে সইকারীদের দাবি, ১৯৯১ সালে অং সান সু চি শান্তিতে যে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তা নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান ‘জব্দ’করবেন অথবা ‘ফেরত নেবেন’।

এদিকে, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এই পিটিশন। বিশেষ করে টুইটারে। এছাড়া ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপেও অনেকেই শেয়ার করছেন পিটিশনে সইয়ের লিংক। পিটিশনে নোবেল শান্তি পুরস্কার কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে সু চির নোবেল জব্দ বা ফেরত নেয়ার দাবির পাশাপাশি পুরস্কার বাবদ প্রাপ্ত ৬০ লাখ সুইডিশ ক্রোনাও ফেরত নেয়ার দাবি উঠেছে।

এর আগে গেলো ৫ সেপ্টেম্বর সু চির নোবেল পুরস্কার কেড়ে নেয়া হবে কিনা কিংবা তা সম্ভব কিনা এসব নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস।
গেলো ২৫ আগস্ট রাখাইনে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ার পর দেড় লাখেরও রোহিঙ্গা মুসলিম ও কিছু সংখ্যক হিন্দু বাংলাদেশে পালিয়ে আসার ঘটনায় আন্তর্জাতিক চাপের মুখে রয়েছে মিয়ানমার।