প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

সূচকের পতন ঠেকাল ব্যাংক খাতের দর বৃদ্ধি

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে গতকাল লেনদেন ও সূচক বাড়লেও কমেছে বেশিরভাগ শেয়ারের দর। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩৭ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। কমেছে ৪৬ শতাংশের দর। বেশিরভাগ কোম্পানির দর কমলেও সূচক নেতিবাচক না হওয়ার কারণ গতকাল ব্যাংক খাতে ৫০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। যা সূচকের পতন ঠেকিয়েছে। এছাড়া তথ্য ও প্রযুক্তি খাত, বিবিধ, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক, প্রকৌশল খাতে বেশিরভাগ কোম্পানির দর বেড়েছে। ছোট খাতগুলোর মধ্যে কাগজ ও মুদ্রণ খাত শতভাগ ইতিবাচক ছিল।
১৫ শতাংশ লেনদেন হয়ে বিমা খাত শীর্ষে উঠে এলেও এ খাতে ৮৯ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্সের সোয়া ১২ কোটি টাকা লেনদেন হলেও এক টাকা ৮০ পয়সা দরপতন হয়। দরপতনের শীর্ষ দশের তালকায় ৯টি ছিল বিমা খাতের কোম্পানি। এরপরে ওষুধ ও রসায়ন খাতে লেনদেন হয় ১৩ শতাংশ। এ খাতে প্রায় ৪২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ২৪ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে জেএমআই সিরিঞ্জ। শেয়ারটির দর আট টাকা বেড়েছে। স্কয়ার ফার্মার প্রায় ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ৬০ পয়সা। বস্ত্র ও প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১১ শতাংশ করে। বস্ত্র খাতে ৩০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। জেনেক্স ইনফোসিসের প্রায় ১৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে দুই টাকা ৩০ পয়সা। প্রকৌশল খাতে ৫২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। মূলধন সংকটে কারখানায় এক মাস উৎপাদন বন্ধ থাকবে এমন খবরে গতকাল পতনের শীর্ষে উঠে আসে আলহাজ টেক্সটাইল। প্রকৌশল খাতে ২৭ শতাংশ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। প্রায় আট শতাংশ বেড়ে রানার অটোমোবাইল দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। কোম্পানিটির প্রায় ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়। বিবিএস কেব্লসের ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৭০ পয়সা। ব্যাংক খাতের লেনদেন ১০ শতাংশে অপরিবর্তিত থাকলেও দর বেড়েছে ৫০ শতাংশ কোম্পানির। ব্র্যাক ব্যাংকের প্রায় সাড়ে আট কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। এছাড়া গ্রামীণফোনের প্রায় ১০ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে এক টাকা। খাদ্য খাতে ৫৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ফাইন ফুডস দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে। বিবিধ খাতে ৫৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। বিএসসির পৌনে ১১ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ১০ পয়সা। আগের দিন মিউচুয়াল ফান্ড খাতে ৯১ শতাংশ কোম্পানির দর বাড়লেও গতকাল তা ৪৫ শতাংশে নেমে আসে। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় ৫০ শতাংশ ছিল মিউচুয়াল ফান্ড খাতের দখলে।

সর্বশেষ..