সূচক কমলেও লেনদেন বৃদ্ধি অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের পুঁজিবাজারে ঈদের ছুটির পরও উত্থানের ধারা অব্যাহত আছে। যার ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক নতুন রেকর্ড গড়েছে। তবে গতকাল বুধবার ডিএসই’র প্রধান সূচক ১৩ দশমিক ৮২ পয়েন্ট কমেছে। অবশ্য সূচক কমলেও লেনদেন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন এক হাজার ৩০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। অন্যদিকে সিএসইতে লেনদেনে নেতিবাচক প্রবণতা ছিল।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসই’র প্রধান মূল্যসূচক (ডিএসইএক্স) ১৩ দশমিক ৮২ পয়েন্ট বা দশমিক ২২ শতাংশ কমে ছয় হাজার ৬৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। তবে ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক এক দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা দশমিক ১৩ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৩৩৫ দশমিক ৫৭ পয়েন্টে ও ডিএস৩০ সূচক তিন দশমিক ৩৯ পয়েন্ট বা দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ১৬০ দশমিক ৪৮ পয়েন্টে অবস্থান নিয়েছে।

দিনশেষে গতকাল ডিএসই’র বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে চার লাখ পাঁচ হাজার ৫০ কোটি ১৪ লাখ টাকা।

ডিএসইতে গতকাল এক হাজার ৩৬৯ কোটি ৮০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৪৯ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৩২০ কোটি টাকা। এদিন ৪৬ কোটি ৬৩ লাখ ৯২ হাজার ৫০৬টি শেয়ার এক লাখ ৮২ হাজার ৭৭৩ বার হাতবদল হয়। এদিন লেনদেন হওয়া ৩২৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৮টির, কমেছে ১৬৩টির ও অপরিবর্তিত ছিল ২২টির দর।

টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের। প্রতিষ্ঠানটির তিন কোটি ২৭ লাখ ৯৯ হাজার ১৭৮টি শেয়ার ৪৫ কোটি ৫১ লাখ টাকায় লেনদেন হয়। তবে কোম্পানিটির শেয়ারদর আগের দিনের চেয়ে দশমিক ২০ শতাংশ কমেছে। সর্বশেষ কোম্পানির শেয়ার ১৩ টাকা ৬০ পয়সায় বেচাকেনা হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, আইএফআইসি ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ফরচুন শুজ, এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইউসিবি ব্যাংক ও আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক।

সবচেয়ে বেশিসংখ্যক শেয়ার লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল ব্যাংকের। কোম্পানিটির তিন কোটি ২৭ লাখ ৯৯ হাজার ১৭৮টি শেয়ার পাঁচ হাজার ৮৩ বার হাতবদল হয়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল প্রিমিয়ার ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল, ইউসিবি ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক ও আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক।

এদিকে ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ দর বেড়েছে উসমানিয়া গ্লাস লিমিটেড ও এসআইবিএলের। এরপর ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ বেড়েছে হাক্কানী পাল্প অ্যান্ড পেপার মিলস লিমিটেডের। একইভাবে মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজের দর বেড়েছে ৯ দশমিক ৯০ শতাংশ। এছাড়া বিমা খাতের কোম্পানি নিটল ইন্স্যুরেন্সের দর বেড়েছে ৯ দশমিক ২৫ শতাংশ। দর বাড়ার শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছেÑনর্দার্ন জুট ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং ও এপেক্স ফুডস।

অন্যদিকে আইআইএফসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের দর আট দশমিক ৩৩ শতাংশ কমেছে। এছাড়া পপুলার লাইফ ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের দর কমেছে আট দশমিক ২১ শতাংশ। দর কমার তালিকায় আরও রয়েছে আইআইএফসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, ট্রাস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, পিএইচপি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, সমতা লেদার, শ্যামপুর সুগার ও মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৪৪ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট কমে ১১ হাজার ৩৭৬ পয়েন্টে, সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭১ দশমিক ৩০ পয়েন্ট কমে ১৮ হাজার ৮২৯ পয়েন্টে অবস্থান করে।

গতকাল দিনজুড়ে সিএসইতে ২৬২টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে ৯৯টি কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। এর বিপরীতে কমেছে ১৪৯টি কোম্পানির শেয়ারদর। আর দিনশেষে অপরিবর্তিত ছিল ১৪টি কোম্পানির শেয়ারদর। এদিন ৫৯ কোটি ৫৯ লাখ ৭৩ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড। কোম্পানিটির প্রায় পাঁচ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর আইএফআইসি ব্যাংকের দুই কোটি ৬২ লাখ টাকার, মবিল যমুনার এক কোটি ৯৮ লাখ, প্রিমিয়ার ব্যাংকের এক কোটি ৫৪ লাখ, ফু-ওয়াং সিরামিকের এক কোটি ৫০ লাখ, এক্সিম ব্যাংকের এক কোটি ৪৫ লাখ, মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজের এক কোটি ৩৬ লাখ, ইসলামী ব্যাংকের এক কোটি ২৮ লাখ, ফরচুন শুজের এক কোটি সাত লাখ টাকার ও বিবিএস কেবল্সের এক কোটি ছয় লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।