বিশ্ব সংবাদ

সেপ্টেম্বরের আগে হচ্ছে না বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্সের উড্ডয়ন

শেয়ার বিজ ডেস্ক: মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্স উড়োজাহাজ উড্ডয়ন আগামী সেপ্টেম্বরের আগে চালু হচ্ছে না বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সর্ববৃহৎ বাণিজ্যিক বিমান পরিবহন সংস্থা আমেরিকান এয়ারলাইনস। সেপ্টেম্বর মাসে উড্ডয়ন বন্ধ থাকায় ১১৫টি রুটে ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করার মাধ্যমে তারা বিষয়টি নিশ্চিত করে। খবর: রয়টার্স।
এর আগে ইন্দোনেশিয়া ও ইথিওপিয়ায় সফটওয়্যার ত্রুটির কারণে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানের প্রাণঘাতী দুর্ঘটনার পর আমেরিকান এয়ারলাইনস উড়োজাহাজটির উড্ডয়ন স্থগিত করে। যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ পুনরায় অনুমতি না দিলে তারা আপাতত উড্ডয়ন বন্ধ রাখার পক্ষেই অবস্থান নিয়েছে। এ বিষয়ে আমেরিকান এয়ারলাইনসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ফেডারেল এভিয়েশন অথরিটির (এফএএ) কাছ থেকে বোয়িংকে নতুন সফটওয়্যার সংযোজনের পর নিরাপত্তার সনদপত্র নিতে হবে। এফএএ সম্পূর্ণ নিরাপত্তার সনদ না দেওয়ার আগ পর্যন্ত তাই তারা বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স যাত্রী পরিবহনে ব্যবহার করবে না।
এদিকে সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের সর্ববৃহৎ বেসামরিক বিমান নির্মাতা বোয়িং জানায়, তারা বিশ্বব্যাপী সব বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করে চলেছে। এ বিষয়ে নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও ম্যাক্স আপডেটের তথ্যও বিনিময় করা হচ্ছে। এছাড়া যেসব বিমান পরিবহন সংস্থা এরই মধ্যে ৭৩৭ ম্যাক্স কিনেছে, তাদের নতুন সফটওয়্যার আপডেট এবং চালক প্রশিক্ষণ প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাপক কর্মসূচি নিয়েছে তারা।
এ বিষয়ে গত রোববার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের পক্ষ থেকে এফএএ’র সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানায়।
পাঁচ মাসের ব্যবধানে ইন্দোনেশিয়া ও ইথিওপিয়ায় ৭৩৭ ম্যাক্সের দুটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ৩৫০ জন মারা যান। সম্প্রতি এ দুই ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনার পর বিশ্বব্যাপী বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্সের উড়োজাহাজগুলো গ্রাউন্ডেড রাখা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী এ সিরিজের উড়োজাহাজগুলো গ্রাউন্ডেড রাখার ফলে যেসব আকাশসেবা সংস্থা এগুলো ব্যবহার করে, তাদের সমস্যায় পড়তে হয়েছে। কারণ ৭৩৭ ম্যাক্স উড়োজাহাজগুলো গ্রাউন্ডেড রাখার ফলে সংশ্লিষ্ট আকাশসেবা সংস্থাগুলোকে অনেক বুকিং বাতিল করতে হয়েছে।
৭৩৭ ম্যাক্স-৮ মডেলের উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হওয়ায় মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা বোয়িং সংকটে পড়েছে। ইথিওপিয়ায় এ মডেলের উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হওয়ার পর থেকে এক সপ্তাহে প্রতিষ্ঠানটির বাজারমূল্য কমেছে দুই হাজার ৫০০ কোটি ডলার। শুধু আর্থিক ক্ষতিই নয়, উড়োজাহাজ খাতে প্রতিষ্ঠানটির সুনামও ক্ষুণœ হচ্ছে।

সর্বশেষ..