সোডিয়াম গ্লুটামেট

স্বাস্থ্য নিয়ে সচেতন মানুষরা সাধারণত চিনি ও লবণের মতো ক্ষতিকর খাবার এড়িয়ে চলেন। এ দুটি উপাদান খাবারের স্বাদ বাড়ালেও ঝুঁকিতে থাকে আমাদের স্বাস্থ্য। এ দুটো বস্তু ছাড়া আরও একটি মারাত্মক খাবার রয়েছে। এর নাম সোডিয়াম গ্লুটামেট বা মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট। এটি প্রক্রিয়াজাত খাবারের অন্যতম উপাদান। রেস্তোরাঁর খাবারে এর ব্যবহার সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই কোনো ধারণা নেই। প্রাকৃতিকভাবে কিছু খাবারে সোডিয়াম গ্লুটামেট থাকে। এটি দেখতে অনেকটা চিনি বা লবণের মতোই। স্বাদ-গন্ধ বাড়ানোর একটি উপাদান এটি।
বিশেষজ্ঞদের মতে, সামান্যতেই দারুণ ক্ষতি করতে পারে উপাদানটি। বিশেষ করে যাদের অ্যালার্জি আছে, যারা এ উপাদানটির প্রতি সংবেদনশীল, তারা এড়িয়ে চলবেন। অন্যরা কখনও বেশি খাবেন না। বেশিরভাগ প্রক্রিয়াজাত খাবারে মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট থাকে। চিপস, প্যাকেটজাত স্যুপ, ক্যানের খাবারে এটা দেওয়া হয়। এসব খাবার অস্বাস্থ্যকর হওয়ার মূলে রয়েছে এ বস্তুটি।
প্রাকৃতিক খাবার ও প্রক্রিয়াজাত খাবারে থাকা এ উপাদানটি একই। তবে প্রক্রিয়াজাত খাবারে এটি তুলনামূলক বেশি থাকে। তাই তা খুবই ক্ষতিকর। ক্যানে থাকেÑএমন সসেজ, চিপস, স্যুপ, হট ডগস, বিয়ার প্রভৃতি খাবারে এটি দেওয়া হয়। প্রকৃতিগতভাবে পনির, টমেটো সস, ওয়ালনাট, ডাল, গম প্রভৃতিতে থাকে। এ কারণে এসব খাবার খেতে ইচ্ছে হয়। অতিরিক্ত খাওয়ার নেশা চাপে। এতে স্থূলতা ও বিপাকক্রিয়ায় সমস্যা দেখা দেয়।
খাওয়ার পর মাদক যেমন মস্তিষ্কের সঙ্গে প্রতিক্রিয়া করে, একই আচরণ করে এ উপাদানটিও। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, খাবারে সোডিয়াম গ্লুটামেট থাকার কারণে ডায়াবেটিসও দানা
বাঁধে। অ্যাড্রিনাল স্ট্রোকের ঝুঁকি বয়ে আনে এ উপাদান।

তথ্যসূত্র: সায়েন্স ফ্রাইডে