এসএমই

সোনালি জাতের মুরগি পালনে সফলতা

ঠাকুরগাঁওয়ের ভেলাজান গ্রামের খামারি সতিশ চন্দ্র। দীর্ঘদিন ধরে ব্রয়লার মুরগি পালন করছেন তিনি। হয়েছেন সফল খামারি। এ অবস্থানে পৌঁছাতে তাকে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করতে হয়েছে। কয়েক বছর ধরে একই জাতের মুরগি পালন করে লাভের মুখ দেখেননি। পরে পাকিস্তানি সোনালি জাতের লেয়ার মুরগি পালন শুরু করেন। গত বছরের জুনে আট হাজার লেয়ার মুরগি পালন করেন। সেই থেকে এ জাতের মুরগি পালন শুরু। তার দেখাদেখি অনেক বেকার যুবক এ জাতের মুরগি পালন করছেন।
বর্তমানে তার খামারে ১০ হাজার মুরগি রয়েছে। তিনি অভিযোগের সুরে বলেন, দিন দিন ফিড ও মুরগির বাচ্চার দাম বাড়ছে। আগে একটি বাচ্চার দাম ছিল মাত্র ১৫ টাকা। এখন ২৫ টাকা। আগে প্রতি বস্তা ফিডের দাম ছিল ১৫০০ টাকা, এখন তা ১৮০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ওষুধ, ফিড ও বাচ্চার দাম আয়ত্তে থাকলেও মুরগির মাংসের ন্যায্য দাম পাওয়া গেলে এ জাতের মুরগি পালন করে অনেক টাকা আয় করা সম্ভব।
ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন বলেন, জেলায় নিবন্ধিত ২১০টি ব্রয়লার ফার্ম আছে। লেয়ার ফার্ম ১৩৫টি। প্যারন স্টক ফার্ম পাঁচটি। বিভিন্ন জাতের মুরগি পালনে খামারিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। বিনা মূল্যে ওষুধ ও টিকা দেওয়া হচ্ছে। খামারিরা যেন মুরগি পালন করে লাভবান হতে পারেন এবং বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে পারেন সেই চেষ্টা করছি আমরা।

শামসুল আলম, ঠাকুরগাঁও

সর্বশেষ..