সোমবার ইউনাইটেড ফাইন্যান্সের লেনদেন বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেডের রেকর্ড ডেট সোমবার। সে জন্য ওইদিন শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকবে। রেকর্ড ডেট শেষ হওয়ার পরদিন অর্থাৎ আগামী মঙ্গলবার থেকে শেয়ার লেনদেন স্বাভাবিক নিয়মেই চলবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।
২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৪ এপ্রিল সকাল ১০টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ মার্চ সোমবার।
আলোচিত সময়ে কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করে এক টাকা ৪৮ পয়সা এবং ৩১ ডিসম্বেরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়ায় ১৬ টাকা ৬৭ পয়সা। যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে এক টাকা ৪৪ পয়সা ও ১৬ টাকা ৯৫ পয়সা।
এর আগে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছে, যা আগের বছরের সমান। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির মোট সম্পদের পরিমাণ দাঁড়ায় দুই হাজার ৩৯৪ কোটি ৪৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল দুই হাজার ৬৭ কোটি ৫৪ লাখ ১৯ হাজার টাকা।
অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে মোট সম্পদ বেড়েছে ৩২৬ কোটি ৮৯ লাখ ১২ হাজার টাকার। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করে ২৫ কোটি ৬২ লাখ টাকা, যা আগের বছর ছিল ৩১ কোটি ৩০ লাখ টাকা। এ হিসাবে কর-পরবর্তী মুনাফা কমেছে ১৮ শতাংশ বা প্রায় ছয় কোটি টাকা। আর্থিক প্রতিবেদনের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ওই বছর কোম্পানিটির ইন্টারেস্ট ইনকাম কমেছে, যে কারণে মোট পরিচালন আয় কমেছে ৫৮ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। অন্যদিকে পরিচালন ব্যয় বেড়েছে চার কোটি ৩৭ লাখ টাকা। এজন্য আলোচিত বছরে মুনাফা কমেছে। কোম্পানিটি ১৯৯৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। কোম্পানির ৩০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১৮৭ কোটি ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকা।
কোম্পানিটির ১৮ কোটি ৭১ লাখ ১৪ হাজার ৬১৫টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৫১ দশমিক ৬৮ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ২০ দশমিক ১৮ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীর এক দশমিক সাত শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ২৭ দশমিক সাত শতাংশ শেয়ার।