বিশ্ব বাণিজ্য

সৌদি আরব থেকে চীনের তেল আমদানি বেড়েছে ৪৩%

শেয়ার বিজ ডেস্ক: চলতি বছরের এপ্রিলে সৌদি আরব থেকে আগের বছরের একই সাময়ের তুলনায় ৪৩ শতাংশ জ্বালানি তেল বেশি আমদানি করেছে চীন। এ মাসে গড়ে প্রতিদিন ৬৩ লাখ টন বা ১৫ লাখ ৩০ হাজার ব্যারেল তেল আমদানি করেছে দেশটি। আগের বছরের একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল ১০ লাখ সাত হাজার ব্যারেল। চীনের সরকারি পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য মিলেছে। খবর রয়টার্স।
চীনের হেংলি পেট্রোকেমিক্যাল কোম্পানি সৌদি থেকে তেল আমদানি করছে। আগামী জুনে এ কোম্পানির রিফাইনারি পূর্ণ উৎপাদনে গেলে দিনে চার লাখ ব্যারেল তেল পরিশোধন করা হবে। এ কোম্পানির চাহিদার ৭০ শতাংই তেল আসছে সৌদি আরব থেকে।
এছাড়া রাশিয়া থেকে চীনের তেল আমদানি গত বছর এপ্রিলে ছিল ১৪ লাখ ৯০ হাজার ব্যারেল। একই সময় ইরান থেকে ৭৮ লাখ ৯ হাজার ১৩৭ ব্যারেল ও ভেনেজুয়েলা থেকে ৪৬ লাখ ২ হাজার ৮১৩ ব্যারেল তেল আমদানি করেছে চীন। চলতি মে মাসের শুরুতে এশিয়ায় সৌদির তেলের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষিতে বাড়তি সরবরাহ বৃদ্ধি করে দেশটির সরকারি জালানি প্রতিষ্ঠান আরামকো।
সম্প্রতি ইরান থেকে তেল আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি ভারতসহ আট দেশকে ইরানের তেল আমদানিতে দেওয়া ছাড় তুলে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তখনই তেল রফতানিকারীদের সংগঠন ওপেককে উত্তোলন বাড়াতে আর্জি জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদিকে বিশ্ববাজারে দর কমায় জানুয়ারি থেকে ছয় মাসের জন্য উত্তোলন কমিয়েছে ওপেক। আবার ভেনেজুয়েলার তেল রফতানিতেও বসেছে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা। এর পরিপ্রেক্ষিতে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গতকাল বৈঠক করার কথা ওপেক ও তাদের সহযোগী দেশগুলোর। ফলিহ? বলেন, ‘ওপেকের লক্ষ্য, মজুত ভাণ্ডার স্বাভাবিক অবস্থায় এনে বাজারে ভারসাম্য রক্ষা করা। আর চাহিদামতো ব্যবস্থা নেওয়া।’ তার দাবি, মার্কিন মজুত ভাণ্ডার টানা বাড়ছে, অর্থাৎ সরবরাহ প্রচুর। বস্তুত ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরের পরে মার্কিন মজুত ভাণ্ডার গত সপ্তাহে সর্বোচ্চ।
অন্যদিকে ইরান নিষেধাজ্ঞা এড়াতে বিকল্প পথে ও গন্তব্যে তেল রফতানির কৌশল নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এক সরকারি কর্মকর্তা। নিষেধাজ্ঞার পরে মে মাসে তেহরানের রফতানি দিনে পাঁচ লাখ ব্যারেলে নেমেছে।
বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, তেলের যে দর ব্যারেলপ্রতি ৭০-৭৩ ডলারের ডলারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে, অনিশ্চয়তার জেরে তার ঊর্ধ্বসীমাকেও অদূর ভবিষ্যতে ছাড়াতে পারে। কারণ জোগান কমার পাশাপাশি এ বছরে বিশ্বে তেলের চাহিদাও বাড়বে বলে গত মঙ্গলবার ইঙ্গিত দিয়েছে ওপেক।

সর্বশেষ..